×
নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“পুরো ব্যাপারটির উপরে আমি নজর রাখব”, বাংলায় পা দিয়েই পটাশপুরের বিজেপি কর্মীর পরিবারকে আশ্বাস শাহের

Advertisement

আজ সকালে কলকাতা এয়ারপোর্টে নেমেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বাংলাতে ঢালাও কর্মসূচি রয়েছে তার আগামী দুদিন ধরে। অমিত শাহ কে স্বাগত জানাতে এয়ারপোর্টে হাজির হয়েছিলেন মুকুল রায়, এবং রাহুল সিনহা। এছাড়া ছিলেন পটাশপুরে জেল হেফাজতে মৃত্যু বিজেপি কর্মী মদন ঘোড়ুই এর পরিবার। এয়ারপোর্টে অমিত শাহ কে স্বাগত জানাতে শয়ে শয়ে বিজেপি কর্মী উপস্থিত ছিলেন। সঙ্গে আয়োজন ছিল ব্যান্ড এবং তাশার।

Advertisement

 

এয়ারপোর্টে এদিন অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে আসেন মদন ঘোরুই এর স্ত্রী, দাদা সহ তার পরিবারের ৪জন সদস্য। তবে, প্রথমে তাদের অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ তাদের। পরে, তারা অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পান। অমিত সাহা তাদের সমস্ত কথা মনোযোগ সহকারে শোনেন এবং তাদেরকে আশ্বাস দেন বিষয়টির উপর কড়া নজর রাখার। বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনায় দ্বিতীয় ময়না তদন্তের নির্দেশ জারি রেখেছে কলকাতা হাইকোর্ট। ডিভিশন বেঞ্চের তরফ থেকে ৫ নভেম্বর এই নির্দেশ জারি করা হয়। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ডিভিশন বেঞ্চ থেকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

 

আদালতের তরফে জানানো হয়েছে, ৩জন চিকিৎসক একসাথে ময়না তদন্ত করবেন পাশাপাশি এই গোটা প্রক্রিয়ার ভিডিও তোলা হবে। পরিবারের মননীত দুইজন ময়নাতদন্তের টেবিলে উপস্থিত থাকতে পারবেন। দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের রিপোর্ট রাজ্যকে আগামী ১০ নভেম্বরের মধ্যে জমা দিতে হবে। এই রিপোর্ট পেশ করার পরেই পরবর্তী শুনানির তারিখ জারি করবে কলকাতা হাইকোর্ট। এই একই ডিভিশন বেঞ্চ থেকে পরবর্তী শুনানি করা হবে বলেও জানা গিয়েছে।

 

তবে এদিন ঢালাও কর্মসূচি রয়েছে অমিত শাহের। আজ সকালের মধ্যে বাঁকুড়া তে প্রবেশ করবেন অমিত শাহ। প্রথমে যাবেন শহর লাগোয়া পুয়াবাগান এ বিরসা মুন্ডার মূর্তিতে মালা দিতে। সেখান থেকে তিনি পৌঁছবেন রবীন্দ্রভবনে দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করতে। বৈঠক শেষে তিনি যাবেন আদিবাসী প্রধান চতুরদিহি গ্রামে। এখানে এসে অমিত শাহ পৌঁছাবেন বিজেপি কর্মী বিভীষণ হাঁসদার বাড়িতে। সেখানে গিয়ে মধ্যাহ্নভোজন করার কথা তার। এদিন অমিত শাহের দুপুরের খাবারে থাকবে ভাত, ডাল, পোস্ত এবং চাটনি। আর অমিত শাহের এই কর্মসূচি ঘিরে বর্তমানে বাঁকুড়া তে পুলিশি তৎপরতা চোখে পড়ার মতো। তারপরে, চতুরডিহি গ্রাম থেকে ফিরে আবার রবীন্দ্রভবনে বৈঠক করতে চাবেন অমিত শাহ।

 

এই কর্মসূচিতে তার প্রধান উদ্দেশ্য বাঁকুড়ার আদিবাসী এবং নিম্নবর্গের মানুষের মন জয় করা। বাংলা কে টার্গেট করে আদিবাসী এবং মতুয়া ভোটব্যাঙ্ককে নিজেদের দিকে টানার জন্য কলকাতায় এসে পৌঁছেছেন বিজেপির চাণক্য। তাই সকলেই এখন তাকিয়ে অমিত শাহের বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার এর কর্মসূচির দিকে।

Related Articles

Back to top button