টলিউডবিনোদন

Yash-Yishaan: ঈশানের বাবার নাম প্রকাশ্যে আসতেই প্রথমবার নিজের বড় ছেলের কথা প্রকাশ্যে বললেন যশ!

টলিউডের পেজ থ্রিয়ের পাতায় এখন একটাই খবর। যশ আর নুসরতের সম্পর্ক নিয়ে বেশ কয়েকমাস ধরে চর্চায় রয়েছেন এই দুই সেলেব। দু-দিন আগেই এক সংবাদমাধ্যমে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন যশ দাশগুপ্তর প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা সিংহ কালহানস। এই দিন যশ আর নুসরতের কথা বলাতে প্রথমবার যশের প্রাক্তন স্ত্রী তথা সন্তানের মা প্রকাশ্যে এসেছেন। তবে শ্বেতা সেই সংবাদমাধ্যমে স্পষ্ট জানিয়েছেন নিজের প্রাক্তন স্বামীর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কোনো কথা বলতে চাননা।

যশের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক শুধুমাত্রকেবল নিজের সন্তানের বাবা হিসাবে , এর বাইরে নিজের প্রাক্তন স্বামীকে নিয়ে কোনও ভাবনা-চিন্তা নেই তাঁর। শ্বেতা আরও জানিয়েছেন তাঁদের সন্তান যশের সঙ্গেই থাকে। এই ইন্টারভিয়ের মাধ্যমে যশের ছেলে আছে সে কথা জানা যায়। শ্বেতার এই ইন্টারভিউ বেশি দিন হয়নি। মাত্র কয়েকঘন্টার মধ্যেই জট খুলেছে সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরতের সন্তান ঈশানের জন্মের শংসাপত্র।

কলকাতা পুরসভার নথি বলছে, ঈশানের পুরো নাম ঈশান জাহান দাশগুপ্ত। আর পিতার নাম দেওয়া হয়েছে দেবাশিস দাশগুপ্ত ওরফে যশ দাশগুপ্ত। সুতরাং নুসরতের সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়ে আর কোনো ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিল তা অবশেষে স্পষ্ট হয়ে গেল। এর মাঝেই প্রথমবার বৃহস্পতিবার ক্যামেরার সামনে নিজের প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা ও নিজের সন্তানকে নিয়ে কথা বললেন যশ দাশগুপ্ত। এই মুহূর্তে সোমবার থেকে ‘চিনে বাদাম’ সিনেমার শ্যুটিং নিয়ে বেশ ব্যস্ত রয়েছেন যশ।

আর সেই ফাঁকে যশের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়েছিল, ‘এখন যশের ব্যস্ত সময়ের অনেকখানি জুড়ে রয়েছে ছোট্ট ঈশান, কেমনভাবে কাটছে দিন?’ মুচকি হেসে অভিনেতা জানিয়েছেন, হ্যাঁ এখন খানিকটা সময় অবশ্যই ঈশান নিয়ে নিয়েছ। এই সময়টাকে অভিনেতা নিজের স্ট্রেস বাস্টার হিসেবে কাজ করে। অভিনেতার মুড অফ থাকলে, স্ট্রেসের মধ্যে থাকলে সেটা কাটিয়ে উঠতে অবশ্যই সাহায্য করে ঈশান।

ঈশান এই কদিনে কতটা বড় হল? টলিউড ফোকাস কলকাতা চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই প্রশ্নের উত্তরে হেসে নুসরতের সহবাস সঙ্গী জানান, এখনো ঈশান খুবই ছোট ও। সবে ১৫ দিন বয়স হয়েছে। এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু পরিবর্তন আসে না, বিশ্বাস করুন। আমার একটা ছেলে আছে, যার ইতিমধ্যেই ৯ বছর বয়স হয়ে গেছে, এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু চেঞ্জ আসে না। এটা সংবাদমাধ্যমের বাড়াবাড়ি’। 

যশ দাশগুপ্তর প্রাক্তন স্ত্রী বা দুজনের ভাঙা বিয়ে নিয়ে খুব বেশি তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে মুম্বইয়ের টেলিভিশন জগতে কাজ করবার সময় দুজনের আলাপ হয়। এরপর তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এরপরেই তাঁদের পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। সেই সময় যশ ‘না আনা ইস দেশ লাডো’ ধারাবাহিকে কাজ করছিলেন। ডিভোর্সের সময় সন্তানের যৌথ কাস্টডি পেয়েছিলেন যশ ও শ্বেতা। তবে ছেলেএখন যশের সঙ্গেই কলকাতায় থাকেন। শ্বেতা এখন মুম্বইনিবাসী,তিনি এক সংবাদমাধ্যমে কাজ করেন। তবে ছেলের নাম বা ছবি আজ পর্যন্ত প্রকাশ্যে আনেননি যশ। এমনকি শ্বেতাও ছেলের নাম প্রকাশ্যে বলেননি।

Related Articles

Back to top button