নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“বাজেট ১০০ শতাংশ দিশাহীন ও গরিব প্রগতিপরিপন্থী”, বললেন তৃণমূল মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন

ডেরেক ও'ব্রায়েন (Derek O'Brien) জানালেন, "এই বাজেট ধনী মানুষদের কথা মাথায় রেখে করা হয়েছে। এছাড়াও বাজেটের মাধ্যমে দেশ বিক্রি করতে চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার।"

আজ ১ লা ফেব্রুয়ারি চলতি বছরের বাজেট অধিবেশন চলছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের (Nirmala Sitaraman) নেতৃত্বে। চলতি বছরের বাজেট অধিবেশন অন্যান্য বছরের তুলনায় বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে তা বলাই বাহুল্য। করোনা পরিস্থিতিতে কি করে অর্থমন্ত্রী দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে পারবে সেই দিকে তাকিয়ে আছে গোটা দেশবাসী। ২০১৯ সালে নির্মলা সীতারামন বাজেট অধিবেশনের প্রায় ২ ঘন্টা বক্তৃতা দেন। তারপর ২০২০ তে নিজের রেকর্ড ভেঙে বাজেট অধিবেশনে আড়াই ঘন্টা ভাষণ দেন তিনি। চলতি বছরের বাজেট অধিবেশনের সম্পূর্ণ অন্যরকম।

আরো পড়ুন :  আবার বাড়ছে রাজ্যজুড়ে, বড়সড় খবর দিল আবহাওয়া দফতর

তবে আজ কেন্দ্রীয় বাজেট অধিবেশন ২০২১ এর সমালোচনা করল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন (Derek O’Brien) কেন্দ্রীয় সাধারণ বাজেট ২০২১ কে সম্পূর্ণ দিশাহীন ও দেশ বিক্রির উদ্যোগ বলে কটাক্ষ করলেন। তিনি বলেছেন, “দেশে প্রথম কাগজমুক্ত ডিজিটাল বাজেট আসলে ১০০ শতাংশ দিশাহীন। এই ভুয়ো বাজেটের লক্ষ্য হলো দেশকে বিক্রি করা। ইতিমধ্যেই ওরা রেল বিক্রি করে দিয়েছে। এবার বিমানবন্দর নৌবন্দর বিক্রি করছে।” এছাড়াও তিনি দাবি করেছেন, “এ বছরের বাজেট সাধারণ মানুষ ও গরিবদের প্রগতি পরিপন্থী। গরিব মানুষের খেয়াল রাখা হয়নি। এই বাজেট ধোনিকে আরো ধনী বানাবে এবং গরীবকে আরো গরীব করবে। মধ্যবিত্তরা কিছুই পায়নি এই বাজেটে।”

আরো পড়ুন :  আসন্ন বাংলা বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় আসছে ওয়েসির দল, অধীরের বক্তব্যে পাল্টা AIMIM প্রধান

এছাড়াও এদিন তৃণমূল মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর পশ্চিমবঙ্গের সড়ক নির্মাণের জন্য বরাদ্দের কথার সমালোচনা করে বলেছেন, “রাজ্যে ২০১১ সালে মোট ৩৯৭০৫ কিলোমিটার রাস্তা ছিল। তারপর তৃণমূল কংগ্রেস শাসনে আসার পর নয় বছরে ২০২০ এর মধ্যে এই রাজ্যে রাস্তার পরিমাণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ৮৮৮৪১ কিলোমিটার। এতটা রাস্তা দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ এই রাজ্যে। সেই নিরিখে ৬৭৫ কিলোমিটার রাস্তা কেন্দ্র সরকার দিয়ে এমন কিছু লাভ করবে না।” প্রসঙ্গত আজ বাজেট অধিবেশনে, নির্মলা সীতারামন বাংলায় ৬৭৫ কিলোমিটার স্টেট হাইওয়ের নির্মাণের জন্য ২৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন।

আরো পড়ুন :  রেল বিক্রির ইস্যুকে নিয়ে কেন্দ্রকে আক্রমণ রাজ্যের শাসক শিবিরের

Related Articles

Back to top button