দেশনিউজপলিটিক্স

Arvind Kejriwal: রামরাজ্যে নির্বাচনী প্রচার থেকে ফিরতেই কোভিড আক্রান্ত দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল

×
Advertisement

এবার কোভিড পজিটিভ দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। মঙ্গলবার সকালে টুইট করে নিজের করোনা সংক্রমিত হওয়ার কথা নিজেই জানান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আম আদমি পার্টি পার্টি সুপ্রিমো আপাতত নিজের বাড়িতেই নিভৃতবাসে আছেন। তিনি টুইটে লেখেন, ‘আমার কোভিড রেজাল্ট পজিটিভ হয়েছে। আমার উপসর্গ হালকা। বাড়িতে নিজেকে আইসোলেশন করেছি। গত কয়েক দিনে যারা আমার সংস্পর্শে এসেছেন, তারা দয়া করে নিজেকে আইসোলেট করুন এবং করোনা পরীক্ষা করান।’

Advertisement

উল্লেখ্য, গতকালই ভোটের নির্বাচনী প্রচারে উত্তরপ্রদেশে গিয়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এর আগে গত বছর এপ্রিল মাসে অরবিন্দের স্ত্রী সুনীতাও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেই সময়ও নিজেকে বাড়িতে হোম আইসোলেট করেছিলেন অরবিন্দ। যদিও সেবার তিনি করোনা আক্রান্ত হননি।  এই মুহূর্তে দিল্লিতেও লাফিয়ে বাড়ছে করোনা ও ওমিক্রন সংক্ৰমণ। ক্রমবর্ধমান করোনা সংক্রমণ নিয়ে আজ সকাল ১১টায় DDMA-এর একটি বৈঠকও স্থির করা হয়েছে।

Advertisement

এই বৈঠকে করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হবে। ঢেউ রঙ-কোডেড গ্রেডেড রেসপন্স অ্যাকশন প্ল্যান (GRAP) এর অধীনে নতুন বিধিনিষেধ ট্রিগার হতে পারে। এই বৈঠকের পর লাল সর্তকতা জারি হতে পারে। দিকে দিল্লিতে করোনা পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক। সোমবারই রাজধানীতে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৯৯ জন। সেখানে পজিটিভিটি হার ৬.৪৬। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জানান, ৩০-৩১ ডিসেম্বরের কোভিড আক্রান্তদের নমুনার জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে দেখা গিয়েছে এর মধ্যে,৮৪ শতাংশ রোগী ওমিক্রন আক্রান্ত।

যদিও সত্যেন্দ্র জৈন বলেছেন যে দিল্লিতে সরকারি হাসপাতাল এবং ক্লিনিকগুলিতে চিকিৎসা কর্মীদের কোনও অভাব নেই। ইতিমধ্যে ২৯ ডিসেম্বর থেকে হলুদ সর্তকতা জারি করা হয়েছে। এই মুহূর্তে দিল্লিতে সিনেমা, জিম বন্ধ রয়েছে এবং জোড়-বিজোড় ভিত্তিতে দোকানগুলিকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। মেট্রো, ট্রেন এবং বাস কেবলমাত্র অর্ধেক যাত্রী নিয়ে পরিষেবা চলছে। কেজরিওয়াল এর আগে সকল জনগণকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

Related Articles

Back to top button