Today Trending Newsনিউজপলিটিক্সরাজ্য

নন্দীগ্রামে মমতার পায়ে চোট, তদন্তভার পেল সিআইডি

আগামীকাল সিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে তদন্ত করতে যাবেন

×
Advertisement

একুশে বাংলা বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দল তাদের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখে নেওয়ার জন্য রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে জনসভা করছেন। ঠিক কিছুদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রামে প্রচার করতে গিয়ে পায়ে আঘাত পেয়েছিলেন। চোটের জেরে নন্দীগ্রাম থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রিন করিডোর করে কলকাতা এসএসকেএম-এ আনা হয়েছিল। সেখানে দুদিন ভর্তি ছিলেন এবং তার বাঁ পায়ের গোড়ালিতে প্লাস্টার হয়েছিল। মুখ্যমন্ত্রীর চোটের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উথালপাতাল হয়েছিল বঙ্গ রাজনীতি। একদিকে মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছিলেন যে তিন চারজন ইচ্ছাকৃত তাকে ধাক্কা দিয়ে নির্বাচনের আগে তাকে বাড়িতে বসিয়ে দিতে চেয়েছিল। আবার অন্যদিকে বিরোধীপক্ষ বিজেপি জোর গলায় দাবি করেছে যে মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনের আগে সহানুভূতি পাওয়ার জন্য সিমপ্যাথি পলিটিক্স খেলছেন।

Advertisement

এরপর থেকেই মুখ্যমন্ত্রীর চোট পাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বঙ্গ রাজনীতিতে অনেক জলঘোলা হয়েছে। এমনকি নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশন ঘটনার বিস্তৃত তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছে। এরপর আজ অর্থাৎ শনিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি করে চোট পেলো তা তদন্ত করার দায়ভার পেল সিআইডি। ঘটনা তদন্ত করার জন্য তৈরি হয়েছে একটি সিট। তারা আগামীকাল নন্দীগ্রামে গিয়ে ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত শুরু করবে। আসলে এর আগে নির্বাচন কমিশন তদন্ত রিপোর্ট চাইলে মুখ্য সচিব রিপোর্টে বলেছিল, “মমতাকে দেখতে প্রচন্ড ভিড় জমে যায় রাস্তায়। সেই ভিড়ের চাপে গাড়ির দরজা মমতার পায় চেপে যায়। ফলে ঘটনাটি দুর্ঘটনা।” তবে এই তত্ত্বকে সম্পুর্ণ উড়িয়ে দিয়েছে ঘাসফুল শিবির।

অন্যদিকে, চোট পাওয়ার পরও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হুইল চেয়ারে বসেই জেলা সফর করছেন। নির্বাচন প্রাক্কালে তৃণমূল সুপ্রিমো হিসাবে তার বাড়িতে বসে থাকা সম্ভব নয়। তাই হুইল চেয়ারে বসে জঙ্গলমহলের একাধিক অঞ্চলে জনসভা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে মুখ্যমন্ত্রীর হুইল চেয়ারে বসে জনসভা করাকে তীব্র সমালোচনা করেছে নন্দীগ্রামে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। তিনি সরাসরি তৃণমূল নেত্রী কে কটাক্ষ করে বলেছেন, “মমতা নাটকবাজ।” তবে এরপর সিআইডি নন্দীগ্রামের যে ঘটনা আসল রুপ খুঁজে বার করবে। জানা গিয়েছে, সিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলবে।

Advertisement

Related Articles

Back to top button