ভাইরাল & ভিডিও

করোনা প্রাণ কেড়ে নিল ‘লাভ ইউ জিন্দেগি’ গার্লের, ‘সাহসিনীকে’ হারিয়ে শোকস্তব্ধ নেটদুনিয়া

চিকিৎসক মনিকা লঙ্ঘে টুইট করে ওই যুবতীর মৃত্যুর খবর জানিয়েছে

×
Advertisement

গতবছর থেকে অভিশাপের আরেক নাম করোনা ভাইরাস। চলতি বছরের শুরুর দিকে এই ভাইরাসের প্রকোপ কমলেও আরও উন্নত মিউট্যান্ট স্ট্রেন নিয়ে ভারতবর্ষের ওপর দ্বিতীয় আঘাত হেনেছে এই মারন ভাইরাস। দেশে এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে প্রতিনিয়ত বাড়ছে সংক্রমনের সংখ্যা। এরপর থেকে বারবার খবরের শিরোনামে এসেছে মৃত্যু, হাহাকার ও গণচিতা জ্বলার হৃদয়বিদারক ছবি। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষ নেতিবাচকতা থেকে দূরে থাকতে চাইলেও হয়তো বাস্তবের মাটিতে দাঁড়িয়ে তা সম্ভব হচ্ছে না। কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়াতে এক যুবতীর ভিডিও ব্যাপক ভাইরাল হয় যে করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালের বেডে পৌঁছে গেলেও জীবনকে উপভোগ করতে একটুও ভোলেনি।

Advertisement

হ্যাঁ, ঠিকই বুঝেছেন। আজকের এই প্রতিবেদনে  “লাভ ইউ জিন্দেগি” গার্লের কথা বলা হচ্ছে। বারংবার সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় শিরোনামে উঠে আসছিলেন ওই যুবতী। ভাইরাল ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল সে অক্সিজেন মাস্ক পরে হাসপাতালের বেডে শুয়ে “লাভ ইউ জিন্দেগি” গানে তাল মিলিয়ে নিজের বেঁচে থাকার ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিচ্ছিল ওই যুবতী। তবে মহামারীর নির্দয় দংশন প্রাণ কেড়ে নিল তার। বছর ৩০ এর যুবতী গত বৃহস্পতিবার শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছে বলে জানিয়ে দিল তার চিকিৎসক মনিকা লঙ্ঘে।

Advertisement

গত বৃহস্পতিবার চিকিৎসক মনিকা লঙ্ঘে ট্যুইট করে জানিয়েছেন, “খুবই খারাপ লাগছে। আমরা এক সাহসীকে হারালাম। দয়া করে ওর পরিবার এবং সন্তানের জন্য প্রার্থনা করুন।” এর আগেও তার চিকিৎসক ১০ মে একটি টুইট করে বলেছিলেন, “ওঁর অবস্থা স্থিতিশীল নয়। আইসিইউ-তে দেওয়া হয়েছে ওঁকে। ওঁর জন্য প্রার্থনা করুন। নিজেকে খুব অসহায় লাগছে। সব কিছু ভগবানের হাতে।”

সোশ্যাল মিডিয়াতে ওই যুবতীর “ডিয়ার জিন্দেগি” সিনেমার “লাভ ইউ জিন্দেগি” গানে তাল মেলানোর ভিডিও ব্যাপক ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল এবং নেটিজেনরা যুবতীর অদম্য সাহস এবং বেঁচে থাকার ইচ্ছার ভুঁয়সী প্রশংসা করেছিল। হাসপাতালের বেডে বসে মুখে অক্সিজেন মাস্ক লাগালে যেখানে সবাই প্রাণভয়ে কুঁকড়ে থাকে সেখানে ওই যুবতী যেন বার্তা দিচ্ছিল, “হাল ছেড়ো না বন্ধু”। কিন্তু প্রকৃতির নিষ্ঠুর নিয়মে আজ আর সে নেই। আমরা হারিয়েছি এক সাহসিনীকে।

Related Articles

Back to top button