দেশনিউজ

আফগানিস্তান ইস্যু নিয়ে বৃহস্পতিবার সর্বদল বৈঠক ডাকলেন মোদী, উপস্থিত থাকবেন মমতা?

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জানিয়েছেন তিনি এই বৈঠকে উপস্থিত থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের সাহায্য করতে চাইছেন



বর্তমানে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে সবথেকে বড় প্রসঙ্গ হয়ে উঠেছে আফগানিস্তানে তালিবানি শাসন প্রতিষ্ঠা। শুধু আফগান ভূমিতে নয় গোটা বিশ্বে বর্তমানে এই বিষয়টি প্রচন্ড মাথা ব্যথা কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে সকলের জন্য। এই অবস্থায় জঙ্গী অধ্যুষিত দেশে নিজেদের নাগরিকদের সুরক্ষা সুনিশ্চিত করার জন্য এবারে উঠে পড়ে লেগেছে ভারত। আফগানিস্তানের থাকা ভারতীয়দের উদ্ধার এবং একাধিক ইস্যুতে বৈঠক করার জন্য আগামী ২৬ আগস্ট সর্বদল বৈঠক এর ডাক দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবে দেশের নিরাপত্তা সচিবরা এবং দেশের বিদেশ সচিবরা। তার পাশাপাশি দেশের প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের উপস্থিত থাকার আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি।

নবান্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে চলেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে এই বিষয়টি পরিষ্কার করেছেন। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্রীয় সরকার একসাথে এই কাজ করবে। ভারত সরকারের যথেষ্ট সম্ভব সাহায্য করবে রাজ্য সরকার।

আগামী ২৬ আগস্ট অর্থাৎ বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটা নাগাদ আফগানিস্তান ইস্যুতে এই বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, আফগানিস্তানের ভারতীয়দের বিনিয়োগ রক্ষা এবং প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে ওই বৈঠকে। এছাড়াও আগামী দিনে তালেবানের সঙ্গে কিভাবে সম্পর্ক তৈরি করা হবে সেই নিয়ে ওই বৈঠকে আলোচনা করা হবে। বিরোধী দলের নেতাদের নিয়ে এই বৈঠকে এই সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী। আফগানিস্তান বিষয়টি নিয়ে সমস্ত তথ্য দেওয়ার জন্য বিদেশমন্ত্রক কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

এই মুহূর্তে কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নাগরিকদের ফেরানোর কাজে ব্যস্ত রয়েছ ভারতীয় বিমান বাহিনী। ভারত সরকারের তরফ থেকে আফগান শিখ এবং আফগান হিন্দুদের ভারতে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যদিও এই বৈঠক প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি বলেছেন, ‘তৃণমূল অবশ্যই এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবে। এটি একটি আন্তর্জাতিক ইস্যু। সর্বদল বৈঠক হবে এবং সেখানে বিদেশ নীতি মেনে রাজ্য সরকার কেন্দ্র সরকারের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করবে। আলাদা করে বাংলার কিছু করার নেই। আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি এবং যথাসম্ভব খোঁজখবর নেওয়ার চেষ্টা করছি।’

Related Articles

Back to top button