নিউজপলিটিক্সরাজ্য

বাংলায় এলেন মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি, বৈঠক করলেন আব্বাস সিদ্দিকীর সঙ্গে

আজ অর্থাৎ রবিবার সকালে ফুরফুরা শরীফে পৌঁছান ওয়েইসি (Asaduddin owaisi)। সেখানে আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) সাথে একান্তে বৈঠক করেন।

Advertisement

একুশে নির্বাচনের আগে দিন যত এগোচ্ছে ততই বাড়ছে রাজনৈতিক জল্পনা-কল্পনা। এবার ঠিক নির্বাচনের কিছুদিন আগে বাংলায় এলেন মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি (Asaduddin owaisi)। এমনিতেই বেশ কিছুদিন ধরে বঙ্গ রাজনীতিতে মিম এর আত্মপ্রকাশ সরগরম করে রেখেছে পরিস্থিতিকে। তারই মধ্যে আজ অর্থাৎ রবিবার সকাল বেলাতেই ফুরফুরা শরীফে পৌঁছে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) সঙ্গে বৈঠক করলেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি।

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগে বিহারের নির্বাচনের ফলে AIMIM ৫ টি আসন জিতেছিল। তখন থেকেই প্রবল জল্পনা চলছিল যে তাহলে এবার বাংলার সংখ্যালঘু ভোটে নিজেদের নাম লেখাতে কি AIMIM আসবে? এমনকি সেই সময় মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসি জানিয়েছিলেন, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার একাধিক জেলায় প্রার্থী দেবে মিম। কিন্তু এরকম ঘোষণার পরই একপ্রকার ধ্বস নামে বাংলার সংগঠনে। মিমের একাধিক বড় বড় নেতা ও কর্মীরা তৃণমূলে যোগদান করে।

ঘটনা পর্যালোচনা করতে ও একুশে নির্বাচনের রণনীতি স্থির করতে আজ সকালে ফুরফুরা শরীফে পৌঁছান আসাদউদ্দিন। সেখানে তাকে স্বাগত জানায় আব্বাস সিদ্দিকী। আব্বাস সিদ্দিকী ফুরফুরা শরীফ ঘুরিয়ে দেখান আসাদউদ্দিনকে। তারপর তারা দুজনে একান্তে বৈঠক করে। তাদের বৈঠকের ছবি টুইট করেন মিম প্রধান। আজকের সভায় তারা আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের রণনীতি তৈরি করতে এসেছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

অন্যদিকে শাসকদল মিমকে ভোটকাটার হিসাবে উল্লেখ করেছে। তাদের অভিযোগ বিজেপি মীমকে বাংলার সংখ্যালঘু মুসলিম ভোট কাটার জন্য এনেছে। অবশ্য সেই কথা মানতে নারাজ বিজেপি। তারা বলেছে তারা বাংলায় নিজেদের ক্ষমতাতেই জিতবে। অন্যদিকে সিপিএম দাবি করেছে পশ্চিমবঙ্গে বিভাজনের রাজনীতির চালু করেছে তৃণমূল ও বিজেপি। আর তার সুযোগ নিচ্ছে মিম।

Tags

Related Articles

Back to top button