নিউজপলিটিক্সরাজ্য

বিজেপি মহিলা মোর্চার কর্মসূচিতে ধুন্ধুমার, গ্রেফতার বিজেপির বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল

গ্রেফতার হওয়ার পরে অগ্নিমিত্রা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন



নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণের প্রতিবাদে বিজেপি মহিলা মোর্চা আইন অমান্য কর্মসূচি নিয়ে আরো একবার উত্তপ্ত হয়ে উঠল বাংলার রাজনীতি। আজকে ভবানীভবনের সামনে বিজেপি মহিলা মোর্চা সভানেত্রী তথা আসানসোল দক্ষিণের বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পলের নেতৃত্বে বিজেপির মহিলা মোর্চা একটি কর্মসূচি করে। সেই কর্মসূচিতে ব্যাপক অশান্তি এবং পুলিশের ধরপাকড় চলে বলে খবর। সূত্রের খবর অনুযায়ী, বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল কে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার সঙ্গে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী এবং সমর্থককে গ্রেপ্তার করে নিয়ে গেছে পুলিশ।

ডিসি দক্ষিণ আকাশ মেঘারিয়া ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। মহিলা মোর্চার কাছ থেকে তাদের এই বিক্ষোভের কারণ জানতে চাওয়া হলে তারা জানায়, হাওড়ার আমতায় বিজেপি কর্মীর স্ত্রীকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে এই কর্মসূচি করছে তারা। শুধু এটাই নয়, আরো বিভিন্ন জায়গায় আরো কর্মসূচি রয়েছে বলে জানিয়েছে বঙ্গ বিজেপি মহিলা মোর্চা। এছাড়াও বুধবার দিল্লিতে সংসদ ভবনের সামনে বিজেপি সাংসদদের একটি বিক্ষোভ সমাবেশ ছিল। বিভিন্ন জায়গায় এই কর্মসূচি ঘিরে ধুনধুমার পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশি বাধার মুখে পড়ে বারংবার বিক্ষোভ কর্মসূচি ব্যাহত হয়ে গিয়েছে।

কলকাতা, মেদিনীপুর, বনগাঁ, বাঁকুড়া, রায়গঞ্জ সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাতে এই কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। তবে সব থেকে বেশি এই কর্মসূচির আঁচ পড়েছে কলকাতা ভবানী ভবন এর সামনে। এই কর্মসূচিতে অতিরিক্ত জমায়েত হয়ে যাবার কারণে পুলিশ সেখানে বাধা দেয়। প্রতিবাদে অগ্নিমিত্রা পল এবং বিজেপি নেত্রীরা সেখানে বিক্ষোভ দেখান। তারপর সেখানে ডিসি দক্ষিণ আকাশ মেঘারিয়া উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে প্রিজন ভ্যানে তুলে দেয়।

গ্রেফতার হওয়ার পরে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন অগ্নিমিত্রা পল। তিনি বারংবার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে থাকেন। তিনি বলেন, ” আমরা বিজেপি করি বলে প্রতিবাদ করলেই এভাবে গ্রেফতার হতে হবে? ধর্ষণের মতো একটি স্পর্শকাতর ইস্যুতে বামফ্রন্ট সরকার রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে কাজে লাগিয়েছিল। ঠিক একই কাজ শুরু করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বেশে বেশে রাজ্যে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ধর্ষণের শিকার হতে হচ্ছে। কারণ তারা বিরোধী রাজনীতি করছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নিয়ে কী বলবেন?”

Related Articles

Back to top button