টলিউডবাংলা সিরিয়ালবিনোদন

Sourav-Twarita: বিয়ের পর শহরের পাঁচতারা হোটেলে স্বামীর প্রথম জন্মদিন উদযাপন ত্বরিতার!



গত জানুয়ারি মাসে সাত পাকে বাঁধা পড়েন টলিপাড়ার মিষ্টি মেয়ে ত্বরিতা। নতুন বছরের শুরুতেই এই অভিনেত্রী গাঁটছাড়া বাঁধেন তরুণ কুমারের নাতি সৌরভ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে। ত্বরিতা আর সৌরভের প্রথম কর্মসূত্রে আলাপ এরপরই বন্ধুত্ব, প্রেম এবং বিয়ে। তিন বছরের প্রেমকে ১৫ জানুয়ারি বেশ জাঁকজমক করেই সাত পাকে বাঁধা পড়েন এই টেলি তারকা দম্পতি। এই দিন দক্ষিণ কলকাতার উত্তীর্ণতে বসেছিল রাজকীয় বিয়ের আসর। পরিবার-বন্ধুদের পাশাপাশি বিয়েতে উপস্থিত হয়েছিলেন টলিউডের বহু কলাকুশলীরা।

বিয়ের পর গতকাল ছিল সৌরভের প্রথম জন্মদিন। তাই জন্মদিন অন্যভাবে উদযাপন করলেন অভিনেত্রী ত্বরিতা। বিয়ের পর প্রথম জন্মদিন বলে কথা। তাই হাবির বার্থডে সেলিব্রেশনের জন্য একগুচ্ছ সারপ্রাইজের পরিকল্পনা করেছিলেন। তবে বাড়িতে নয় শহরের এক পাঁচতারা হোটেলে জন্মদিন উদযাপন করেন ত্বরিতা। এই দিন কি না ছিল স্বামীর জন্মদিনে। রাজকীয় আয়োজন ছিল। জন্মদিনের দিন একদিকে কেক আর ফুলের তোড়া হাতে নিয়ে হোটেলের রুমেই ক্যামেরায় লেন্সবন্দী হন বার্থডে বয়।

এই দিন অভিনেতা একটা নয় চারটি বিভিন্ন ফ্লেভারের কেক কাটলেন সৌরভ। এই দিন দুজনে ডায়েট ভুলে জিভে জল আনা স্ন্যাকস আর ডেজার্ট খাওয়া দাওয়া করলেন। এমনকি পানীয়তে ছিল ভোডকা। এই দিন মজা করে কাটিয়েছেন এই জুটি। আর সব ছবি দেখে জিভে জল এসে যায় নেটিজেনদের। স্বামীর জন্মদিনের একগুচ্ছ ছবি ত্বরিতা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার কর ক্যাপশনে লিখেছেন, এত ভালো একজন সঙ্গীকে পাওয়ার জন্য নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেছেন। আর অনেক ভালোবাসা জানিয়েছেন। অনুগামীরাও ভালোবাসা আর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য,জুলাই মাসে ছিল অভিনেত্রী ত্বরিতার জন্মদিন। এই দিন সৌরভও বাড়িতে রাত ১২টার সময় সারপ্রাইজ দিয়েছিলেন। গোটা ঘর নিজের হাতে হলুদ, বাদামী, সাদা রঙের বেলুন দিয়ে সাজিয়েছিলেন। ত্বরিতার বন্ধুদের সাথে জাঁকজমক ভাবে জন্মদিন সেলিব্রেশন করেন। দুজনে সংসারের পাশাপাশি মন দিয়ে কাজ করছেন। এই মুহূর্তে ত্বরিতা ‘কড়িখেলা’ ধারাবাহিকেও এক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন৷ অন্যদিকে সৌরভও দাদুর মতো একাধিক ধারাবাহিকে অভিনয় করছেন। এখন স্টার জলসাতে গ্রামের রাণী বীনাপানিতে অভিনয় করছেন। নিজের অভিনয় দক্ষতায় মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন দুজনেই।

Related Articles

Back to top button