ব্যবসা-বানিজ্য ও অর্থনীতিদেশনিউজ

সাইবার অপরাধীদের টার্গেটে রয়েছেন আধার ব্যবহারকারীরা, আপনিও এই ওয়েবসাইটে লগইন করেননি তো? AADHAAR CARD FRURD

সাইবার অপরাধীরা এই মুহূর্তে আধার কার্ড ব্যবহারকারীদের ঠকাতে শুরু করেছেন

Advertisement
Advertisement

আজকের দিনে ভারতের সাধারণ মানুষের জন্য আধার কার্ড একটি অপরিহার্য জিনিস হয়ে উঠেছে। বহুল ব্যবহার্য্য পরিচয়পত্র হবার পাশাপাশি আধার কার্ড আপনার ব্যাংক একাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে সমস্ত ধরনের কাজে আপনাকে সাহায্য করে। আধার কার্ড ছাড়া আপনি কোনভাবেই কোন কাজ করতে পারবেন না আজকের দিনে। একটা নূন্যতম ব্যাংক একাউন্ট খুলতে গেলেও আপনার আধার কার্ড প্রয়োজন হবে এখন। তাই পরিচয় পত্র হিসেবে এই কার্ড এখন ভারতে সর্বাধিক প্রয়োজনীয় কার্ড হয়ে উঠেছে।

Advertisement
Advertisement

আধার কার্ডের প্রয়োজনীয়তা যত বেড়েছে, ততই বেড়েছে আধার জালিয়াতদের সংখ্যা। বিগত কয়েক বছরে আধার কার্ড নিয়ে জালিয়াতির সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেই কারণে আপনাকেও এখন সতর্ক থাকতে হবে নিজের আধার কার্ড নিয়ে। অনেকেই নিজের আধার কার্ড নিয়ে অতটা বেশি সচেতন নন। অনেকেই জানেন না তাদের আধার কার্ডের জেরক্স কপি কোথায় কোথায় রয়েছে। না বুঝেই আধার কার্ডের নম্বর এবং কিউআর কোড সবাইকে দিয়ে বেড়ান অনেকে। আবার অনেকে এমন রয়েছেন যারা নিজের আধার কার্ড অন্য কারোর কাছে রেখে দিয়ে চলে এসেছেন। এই অবস্থায় আপনার কিন্তু আধার কার্ড নিয়ে একটু বেশি সচেতন থাকা উচিত। না হলে আধার কার্ড সম্পর্কিত স্ক্যামে আপনি জড়িয়ে পড়তে পারেন।

Advertisement

এই সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে অবগত করার জন্য আধার কার্ড নিয়ামক সংস্থা ইউআইডিএআই একটি টুইট জারি করেছে। তারা জানিয়েছে, আধার কার্ড সম্পর্কিত কোন কাজ করতে হলে যেন তারা শুধুমাত্র ইউআইডিএআই এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://uidai.gov.in এ লগইন করেন। আধার কার্ড নিয়ামক সংস্থার আর কোন ওয়েবসাইট কিন্তু নেই। তাই কোন লিংক যদি আপনার কাছে আসে যেখানে অন্য কোন ওয়েবসাইটের নাম উল্লেখ রয়েছে, তাহলে তৎক্ষণাৎ যেন সেই ওয়েবসাইট থেকে ওই ব্যক্তি বেরিয়ে আসেন। এর পাশাপাশি আপনি আধারের অফিশিয়াল অ্যাপ mAadhaar ব্যবহার করতে পারেন সমস্ত কাজের জন্য।

Advertisement
Advertisement

অফিসিয়াল কাজের জন্য, আধারের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল mAadhaarPortal ফলো করার অনুরোধ করা হয়েছে ভারত সরকারের তরফ থেকে। আধার নম্বর, আধার সম্পর্কিত কোন ওটিপি এবং বায়োমেট্রিক ডেটা যাতে অন্য মানুষের সাথে শেয়ার না করা হয় তার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে সাধারণ মানুষকে। এছাড়াও, আধার অথেনটিকেশনের জন্য একটি নতুন এসএমএস সার্ভিস শুরু করেছে ভারত সরকার। সেই এসএমএস সার্ভিস ব্যবহার করতে উৎসাহিত করা হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। সব মিলিয়ে আধার কার্ড জালিয়াতি যে একটা বড় মাত্রায় পৌঁছে গিয়েছে সেটা ভারত সরকারের তৎপরতা দেখলেই বোঝা যায়। তাই এই মুহূর্তে আপনাকেও ভারত সরকারের নির্দেশিত সমস্ত পদক্ষেপ মেনে চলা উচিত।

Advertisement

Related Articles

Back to top button