ভাইরাল & ভিডিও

Viral: হারমোনিয়াম বাজিয়ে কুঁড়েঘরেই গানের আসর বসিয়েছে এই ক্ষুদে! গান শুনে মুগ্ধ নেটজনতা

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়া বর্তমান প্রজন্মের কাছে একটা গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা নিমেষের মধ্যে যেকোনো খবর, ভিডিও কিংবা ছবি কিংবা যেকোনো ধরনের পোস্ট পৌঁছে দিতে পারে বহু মানুষের কাছে। শুধুমাত্র বিনোদন মাধ্যম হিসেবেই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মগুলি বর্তমানে মানুষের কাছে নিজেদের প্রতিভাকে তুলে ধরার অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে। আজকের যুগে এমন বহু মানুষ রয়েছেন যারা শুধুমাত্র অভাবের কারণে নিজেদের প্রতিভাকে সকলের সামনে নিয়ে আসার সুযোগ পান না। তবে মাঝে মাঝে কিছু স্বহৃদয় ব্যক্তির সাহায্যে তারা ভাইরাল গান নেটিজেনদের মাঝে। সম্প্রতি তেমনি এক প্রতিভা উঠে এসেছে সকলের সামনে। যা রীতিমতো অবাক করেছে নেটনাগরিকদের অধিকাংশকে।

Advertisement

কমলেশ মন্ডল নামের এক ব্যক্তির ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে গত বছরের শেষের দিকে, ২০২১-এর ২৭-শে ডিসেম্বর একটি বাচ্চা ছেলের গান গাওয়ার ভিডিও শেয়ার করা হয়েছিল। যা শেয়ার হওয়া মাত্রই প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন নেটনাগরিকদের অধিকাংশ। তার গানের গলা শুনলে সত্যিই অবাক হতে হয়। ভিডিওটিতে যে বাচ্চাটিকে দেখা যাচ্ছে সে বড়শুল, পূর্ব বর্ধমানের বাসিন্দা। নাম অভিষেক সানা। একটি কুঁড়েঘরে চরম অভাব-অনটনের মাঝেও গান গেয়ে চলেছে সে। একটি হারমোনিয়াম জোগাড় করে প্রতিদিন গানের রেওয়াজ চালিয়ে যায় অভিষেক। রইল সেই ভিডিও।

Advertisement

কমলেশ মন্ডল নামের এই ব্যক্তিটি কোন কারণে পূর্ব বর্ধমানের এই জায়গায় গিয়েছিলেন আর সেখানে গিয়েই দেখা পেয়েছেন অভিষেকের। হারমোনিয়াম বাজিয়ে অসাধারণ কন্ঠে তার গান গাওয়া শুনে আর থাকতে পারেননি তিনি। এই দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করে নিয়েছিলেন তিনি। আর সেই ভিডিওই শেয়ার করে দেন নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে। অভিষেক সানার গান শোনার পর থেকে মুগ্ধ হয়েছেন অনেকেই।

উল্লেখ্য, এই ভিডিও শেয়ার হওয়ার পর থেকেই, তা ভাইরাল হয়েছে। অভিষেকের গান শোনার পরেই অনেক নেটিজেন বলেছেন যদি এখন থেকেই সে সঠিকভাবে গানের প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করে তাহলে একদিন বড় বড় শিল্পীদেরও টেক্কা দিতে পারবে। তবে আমাদের সমাজে এমন বহু প্রতিভার প্রতিদিন প্রতিনিয়ত হারিয়ে যাচ্ছে শুধুমাত্র আর্থিক অভাবের কারণে। যাদের দুবেলা দুমুঠো খাবার জোটাতে কালঘাম ছুটে যায় তাদের আবার প্রতিভা। এই ভিডিও যদি কোন সহৃদয় ব্যক্তির চোখে পড়ে এবং তিনি যদি কোনরকম ভাবে তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তাহলে সে একদিন জীবনে উন্নতি করবেই। তবে আজকের দিনে বর্তমান পরিস্থিতিতে নিজে থেকে কেউই এগিয়ে যেতে চান না। তবে নেটিজেনরা আশা করছেন, তার মতো প্রতিভা যেন কোনভাবেই হারিয়ে না যায়।

Advertisement

Related Articles

Back to top button