ব্যবসা-বানিজ্য ও অর্থনীতি

পুরনো পাঁচ টাকার নোটে ৭৮৬ নম্বর লেখা থাকলে বাড়ি বসেই পেয়ে যান ২ লাখ টাকা, জানুন কীভাবে

৭৮৬ সংখ্যাটি লেখা একটি ৫ টাকার নোট এই মুহূর্তে প্রচুর দামে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে

×
Advertisement

ভারতে এমন অনেক মানুষ আছেন যারা কিন্তু পুরনো নোট জোগাড় করতে পছন্দ করে থাকেন। তাদের একদিক থেকে একটা হবি বলা যেতে পারে এই পুরনো নোট জোগাড় করা। একেবারে পুরনো দিনের এক টাকার নোট হোক বা দুই টাকার নোট, এমনকি পুরনো ১০ টাকার নোট বা পাঁচ টাকার নোট সবকিছুই এনাদের কালেকশনে থেকে যায়। কিন্তু, আপনারা কি জানেন এই ধরনের পুরনো নোটের এক একটির মূল্য কিন্তু প্রায় লক্ষাধিক টাকা হতে পারে। এই ধরনের পুরনো নোট যদি আপনি কোন একটি বিশ্বস্ত জায়গায় বিক্রি করতে পারেন তাহলে একটি পাঁচ টাকার নোট বিক্রি করলে আপনি ৫ লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন। এবং এই বিষয়টা কিন্তু সর্বৈব সত্য।

Advertisement

তবে আপনাদের জানিয়ে রাখি, এই ধরনের পুরনো নোট বিক্রি করার জন্য কিছু বিশেষ শর্ত রয়েছে। যে পুরনো নোট আপনি বিক্রি করতে চাইছেন সেই নোটের কিছু বিশেষ বিশেষত্ব থাকাটা খুব প্রয়োজন। তার পাশাপাশি যে ধরনের নোট আপনি বিক্রি করবেন সেই নোটে, একটি বিশেষ নম্বর থাকতে হবে। সেটা হতে পারে ৭৮৬, কিংবা ০০০, কিংবা ১২৩ এইসব। এই ধরনের নোট যদি পুরনো দিনের থাকে তাহলে সেগুলোকে একটা অ্যান্টিক আইটেম হিসেবে ধরে নেওয়া হয়। যে জিনিস বিক্রি করলে আপনি লক্ষাধিক টাকা কামাতে পারেন খুব সহজে।

ইবে ওয়েবসাইটে কিরকম ভাবে বিক্রি করবেন পুরনো নোট এবং কয়েন?

Advertisement

এই ওয়েবসাইটে প্রথমে আপনি লগইন করে নিন এবং তারপর হোমপেজে আপনি রেজিস্টার করুন বিক্রেতা হিসেবে।

তারপরে আপনি নিজের কয়েন অথবা সেই পুরনো নোটের একটি স্পষ্ট ছবি তুলুন এবং সেই ওয়েবসাইটে নিজের একটি বিজ্ঞাপন আপলোড করুন।

এই ওয়েবসাইটের তরফ থেকেই আপনার বিজ্ঞাপন এমন কিছু লোকের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে যারা এই ধরনের পুরনো নোট এবং কয়েন কিনতে পছন্দ করে থাকেন।

তারপর আপনাকে তারা সরাসরি কন্টাক্ট করে আপনার কাছ থেকে নোট এবং কয়েন ঠিকঠাক দামে কিনে নিতে পারবেন।

কিভাবে কুইকার ওয়েবসাইটে বেচবেন পুরনো নোট এবং কয়েন?

এর জন্য প্রথমে আপনাকে কুইকার ওয়েবসাইটে গিয়ে বিক্রেতা হিসেবে রেজিস্টার করতে হবে এবং লগইন করতে হবে।

তারপর আপনাকে সেই পুরনো নোট অথবা কয়েনের একটি স্পষ্ট ছবি তুলে সেই ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে এবং সেখানে নিজের সম্পূর্ণ ডিটেইলস, ফোন নাম্বার এবং ইমেইল আইডি দিতে হবে।

তারপর ওয়েবসাইট এর তরফ থেকে আপনার সমস্ত ডিটেইলস ভেরিফাই করা হবে এবং তারপর ডিটেইল সম্পূর্ণ ঠিকঠাক থাকলে ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে আপনার পুরনো নোট এবং কয়েনের ছবি বিজ্ঞাপনের আকারে পাঠিয়ে দেওয়া হবে ইচ্ছুক ক্রেতাদের কাছে। সেখান থেকে তারা আপনার সাথে সরাসরি কন্টাক্ট করতে পারবেন।

কয়েন বাজার ওয়েবসাইটে কিরকম ভাবে বিক্রি করবেন পুরনো নোট এবং কয়েন?

এই ওয়েবসাইটে যদি আপনি বিক্রি করতে চান তাহলে প্রত্যেক দিনের আলাদা আলাদা সেলিং প্রাইস আপনি সেট করতে পারেন।

এখানেও আপনাকে কিভাবে লগইন করতে হবে, তারপর নিজেকে বিক্রেতা বলে রেজিস্টার করতে হবে এবং তারপর নিজের পুরনো নোট এবং কয়েনের ছবি তুলে সেটাকে বিজ্ঞাপনের আকারে ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে।

কয়েন বাজার ওয়েবসাইটে যদি আপনার সাথে কেউ সরাসরি কন্টাক্ট করে আপনার জিনিস ক্রয় করতে চায় তাহলেও করতে পারে। তবে কয়েন বাজার ওয়েবসাইটের সবথেকে বড় বিষয়টা হলো, এই ওয়েবসাইটে একটা ডেলিভারি সার্ভিস রয়েছে। অর্থাৎ বিক্রেতা যদি আপনার কাছে সরাসরি পেমেন্ট করে দেয় তাহলে আপনি নিজের বাড়ি থেকে এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ডেলিভারি করতে পারে নিজের পুরনো নোট এবং কয়েন। তবে হ্যাঁ যে সমস্ত প্রোডাক্ট আপনি বিক্রি করতে চাইছেন সে সমস্ত প্রোডাক্ট এর সার্টিফাইড প্যাকেজিং করাবেন।

Related Articles

Back to top button