স্বাস্থ্য ও ফিটনেস

দীর্ঘজীবন পেতে যে সমস্ত খাওয়ার স্বাস্থ্য উপকারি তা অবশ্যই জেনেনিন

Advertisement

দেবপ্রিয়া সরকার : প্রতিটি মানুষই দীর্ঘ জীবন এবং জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত সুস্থ ভাবে বাঁচতে চায়। কিন্তু এই ভেজালের দুনিয়ায় সুস্থভাবে বেঁচে থাকাটাই সব থেকে কঠিন। নিত্য প্রয়োজনীয় প্রতিটি জিনিসই এখন ভেজাল যুক্ত। বিশেষ করে খাওয়ারে। এমন খাবার খুব কমই আছে যাতে ভেজাল পাওয়া যাবে না। এই বিপুল জনসংখ্যার দেশে প্রতিটি মানুষের কাছে যাতে পরিমাণ খাবার পৌঁছে যেতে পারে তার জন্য খাবারের উৎপাদন বৃদ্ধিতে ফলমূল থেকে শাকসবজি প্রতিটি জিনিসে ভেজাল মেশানো হচ্ছে। এর মধ্যেই এমন কিছু খাবার আমাদের বেছে নিতে হবে যা আমাদের দীর্ঘ জীবনে বেঁচে থাকার জন্য উপযোগী। তবে শুধুমাত্র পুষ্টিকর খাবারই নয়, এর সাথে প্রতিদিন ব্যায়াম করা, পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেওয়া, অতিরিক্ত চিন্তা না করা এবং মানসিক অবসাদ যাতে দূরে থাকে সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

সুস্থ এবং নীরোগময় জীবন পেতে যে খাবারগুলি আমাদের প্রতিদিন গ্রহণ করা উচিত তা হল-

১: সুস্থ ও নীরোগ জীবন পেতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় প্রথম এবং প্রধান যে খাবারটি রাখা আবশ্যক, তাহলে শাকসবজি। এতে রয়েছে শরীরের জন্য দরকারি সমস্ত পুষ্টিকর উপাদান অর্থাৎ ফাইবার,অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট,ভিটামিন এবং মিনারেলস। মানব শরীরে প্রতিদিনের২৫-৩৫ গ্রাম ফাইবারের চাহিদা পূরণের জন্য শাকসবজি গ্রহণের বিকল্প আর কিছু নেই।

২: শরীরের উচ্চ কোলেস্টেরল কমাতে অলিভ অয়েল বেশ উপকারী। সুস্থ জীবনের জন্য হার্ট কে সুস্থ রাখা অত্যন্ত জরুরী। আর সস্তার রেগুলার অয়েল খাওয়া হার্টের পক্ষে ক্ষতিকারক। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রেগুলার অয়েল কে বাদ দিয়ে অলিভ অয়েল খাওয়াটাই স্বাস্থ্যপোকারি বলে মনে করা হয়। কোলেস্টরলের পরিমাণ কমাতে প্রতিদিনের খাবারে তেলের ব্যবহার কমাতে হবে। তাই প্রতিদিনের খাওয়ারে তিন-চার চামচ তেল ই যথেষ্ট।

৩: বিন জাতীয় খাবারে থাকা ফাইবার আমাদের হজম প্রক্রিয়াকে ভাল রাখতে সাহায্য করে। ডায়াবেটিস এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। তাই সপ্তাহে দুই-তিন দিন খাদ্য তালিকায় বিন জাতীয় খাবার রাখুন।

৪: বেরিতে অনেক ধরনের পুষ্টিকর উপাদান থাকে যা আমাদের বিভিন্ন রোগ নিরাময়ক হিসেবে কাজ করে। এটি ক্যান্সার ও ব্রেইনের নানান রোগকে প্রতিরোধ করে। তাই দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে বিভিন্ন ধরণের বেরি খাওয়া প্রয়োজন।

৫: প্রতিদিনের খাদ্য তালিকাতে শস্য, মাছ, অলিভ অয়েল, শাকসবজি এবং লবণের পরিবর্তে নানা রকম হার্বস ব্যবহারে দীর্ঘকালীন সুস্থ জীবন পেতে পারেন। এই ধরনের খাবার যেমন, পুষ্টিকর তেমনই সুস্বাদু। এই ধরণের খাবার মেমরি ঠিক রাখতে, ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে এবং হৃদরোগ সম্পর্কিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

৬: প্রতিদিন এক মুঠো বাদাম সুস্থ এবং নীরোগ থাকতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় কিছুটা হলেও বাদাম খাওয়া উচিত।  কাঠ বাদামে রয়েছে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম এবং ভিটামিন-ই, ব্রাজিল নাটে রয়েছে ফাইবার এবং সেলেনিয়াম যা গ্রহণে মিলবে সারাদিনের পুষ্টি। এছাড়া কাজুবাদামে রয়েছে নন হিম আয়রন, আখরোটে রয়েছে আলফা লিনোলিক এসিড,প্লান্ট ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। কিন্তু মনে রাখতে হবে প্রয়োজনের তুলনায় বেশী সবকিছুই ক্ষতিকারক। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ৩০ গ্রামের বেশি বাদাম খাওয়া উচিত নয়।

৭: দুধ এবং দুগ্ধজাত সকল খাওয়ারে রয়েছে ভিটামিন-ডি এবং ক্যালসিয়াম, যা আমাদের হাড়ের সুরক্ষায় অপরিহার্য। তাই সপ্তাহে অন্তত এক-দুই দিন দুগ্ধজাতীয় খাবার গ্রহণ করা উচিত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button