নিউজরাজ্য

দীর্ঘ ৭ মাস পর চালু হল লোকাল ট্রেন, প্রথম দিনই খারাপ হল শিয়ালদহ স্টেশনের টিকিট মেশিন

×
Advertisement

দীর্ঘ সাড়ে ৭ মাস পর অবশেষে আজ সকালে বাংলায় গড়ালো লোকাল ট্রেনের চাকা। আজ অর্থাৎ বুধবার ভোররাত থেকে শিয়ালদহ, হাওড়া ও খড়গপুর ডিভিশনে চালু হয়েছে ট্রেন। ক্যানিং স্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফর্ম থেকে ভোর ৩ টা ১৫ মিনিটে দীর্ঘদিন পর প্রথম লোকাল ট্রেনের চাকা গড়ায়। ক্যানিং থেকে শিয়ালদহ আসা ওই ট্রেনের যাত্রী সংখ্যা ছিল ১১৫ জন। করোনা পরিস্থিতিতে সোশ্যাল ডিসটেন্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্য বিধি মানার জন্য বিভিন্ন সতর্কমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে প্রত্যেক স্টেশনে। গোটা ব্যাপারটি নজরে রেখেছে রেল পুলিশ ও রাজ্য প্রশাসন।

Advertisement

আজ থেকে শিয়ালদহ ডিভিশনে ৪১৩ টি লোকাল ট্রেন ও হাওড়া ডিভিশনে ২০২ টি লোকাল ট্রেন চলবে। অফিস টাইমে ভিড় সামলানোর জন্য সকাল ও বিকেলে ট্রেনের সংখ্যা বেশি রাখা হবে বলেই জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। মান্থলি ও দৈনিক টিকিটের জন্য ইতিমধ্যেই সেশনগুলিতে লম্বা লাইন পড়ছে। আজ ভোররাত থেকেই বিভিন্ন স্টেশনে ভালোই ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এতদিন কষ্ট করে গন্তব্যে পৌঁছাতে হলেও আজ থেকে সমাজের সমস্ত স্তরের মানুষ লোকাল ট্রেন ব্যবহার করে অনেকটা হলেও স্বস্তি পাবে। স্টেশনে উপস্থিত স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা ট্রেনে ওঠার আগে থার্মাল চেকিং করে নিচ্ছে।

এবার অবশ্য বেলা বাড়লে রিয়েল ও রাজ্যের পরিকাঠামো কতটা ভিড় সামলাতে পারবে, সেটাই এখন প্রশ্ন। সকাল থেকেই শিয়ালদহ মেন শাখার স্টেশনগুলোতে টিকিট কাউন্টারে বেশ ভিড় দেখা যাচ্ছে। সেখানে তৎপর পুলিশ সোশ্যাল ডিসটেন্স বজায় রাখার কথা জানাচ্ছে।

Advertisement

কিন্তু তারই মধ্যে শিয়ালদহ স্টেশনের টিকিট কাউন্টারে চিত্রটা সম্পূর্ণ আলাদা। সারে সারে লাগানো আছে অটোমেটিক টিকিট ভেন্ডিং মেশিন। কিন্তু সব মেশিনই বিকল হয়ে পড়ে আছে। এর ফলে শিয়ালদহ সাউথ সেকশনে টিকিট কাটার জন্য লম্বা লাইন দেখা গেল। গোলের মধ্যে দাঁড়িয়ে দূরত্ব বিধি বজায় রেখে টিকিট কাটার কোন বালাই নেই। সব মিলিয়ে নিউ নর্মালে প্রথম দিনের প্রথম সকালেই দেখা গেল চরম বিশৃঙ্খলা। যাত্রীরা জানিয়েছে যদি ওই অটোমেটিক টিকিট ভেন্ডিং মেশিনগুলো চালু থাকত, তাহলে টিকিট কাটার জন্য এত লম্বা লাইন বা এত ভিড় হত না। সকালবেলার শিয়ালদহ স্টেশনের এরকম চিত্র, বেলা গড়ালে পরিস্থিতি আরও উদ্বেগজনক হবে তার ইঙ্গিত মাত্র।

Related Articles

Back to top button