Today Trending Newsনিউজরাজ্য

Alapan Bandyopadhyay: আলাপনকে ছাড়চ্ছে না রাজ্য, কেন্দ্রকে চিঠি নবান্নের

রাজ্য সরকার সাফ জানিয়ে দিয়েছে তারা আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়ছেনা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নিয়ে পরবর্তী ঘোষণা করতে চলেছেন বিকেলের সাংবাদিক বৈঠকে

×
Advertisement

রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবারে রাজ্যের নয় কেন্দ্রের হয়ে কাজ করবেন, শুক্রবার রাতে কেন্দ্রীয় কমিটির তরফ থেকে চিঠি আসার পরেই রাজ্য রাজনীতি দোলাচলে। তৃণমূলের নেতারা এই বিষয়টিকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার আখ্যা দিয়েছিলেন। সকলের অভিযোগ ছিল, যেহেতু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে রিভিউ মিটিং এ বসেননি, তাই তড়িঘড়ি এই বদলির চিঠি। তবে এবারে, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে ব্যাট ধরতে সরাসরি মাঠে নামলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Advertisement

তৃণমূল কংগ্রেস সরাসরি ঘোষণা করে দিয়েছে, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়ছেনা রাজ্য সরকার। তার সঙ্গেই কেন্দ্রীয় কর্মীবর্গ কমিটিকে তারা জানিয়ে দিয়েছে, যেখানে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর মেয়াদ বৃদ্ধির আর্জি কেন্দ্রীয় কর্মীবর্গ কমিটি মঞ্জুর করেছিলেন, সেখান থেকে কিভাবে হঠাৎ করে একটি চিঠি পাঠিয়ে আলাপনকে সরিয়ে দিতে পারেন তারা।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। বিকেলে একটি সাংবাদিক বৈঠকে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে তাদের সিদ্ধান্ত জানাবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় কর্মীবর্গ কমিটির কাছে চিঠি পাঠিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে এখনই অব্যাহতি দিচ্ছে না রাজ্য সরকার। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি এবং যশের তাণ্ডবের পর বর্তমানে ত্রাণের কাজ চলছে। এই পরিস্থিতিতে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজ্যের তরফে গুরু দায়িত্ব নিতে হচ্ছে বলে খবর।

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমানে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় দীঘা উন্নয়ন পর্ষদের দায়িত্বে রয়েছেন। এই প্রথমবারের জন্য কোন আমলা এই পর্ষদের দায়িত্ব পেলেন। এই মাসেই নিজের ৬০ বছর পূর্ণ করেছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তিনি যাতে তার কাজ চালিয়ে যেতে পারেন এই জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে ৩ মাস তার মেয়াদ বৃদ্ধির আর্জি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে। প্রথমে সেই আরজিতে সাড়া দিলেও, পরবর্তীতে চিঠি পাঠিয়ে জানানো হয় আগামী ৩১মের মধ্যে আলাপনকে যোগ দিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারের কাজে।

অন্যদিকে বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার গন্ধ পাচ্ছে তৃণমূল। তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ অভিযোগ করেছেন, যখন মুখ্যমন্ত্রী এবং মুখ্যসচিব একসাথে নিজের কাজ চালাচ্ছেন সেই পরিস্থিতিতে কিভাবে কেন্দ্রীয় সরকার মুখ্যসচিবকে অব্যাহতি দেওয়ার কথা ঘোষণা করে! এছাড়াও আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিকেলের সাংবাদিক বৈঠকে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে সমস্ত বিষয়টি পরিষ্কার করে দেবেন। জানা যাচ্ছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাংবাদিক বৈঠকের পাল্টা শুভেন্দু অধিকারী আবার বিকেল ৪.৩০ নাগাদ সাংবাদিক বৈঠক করতে চলেছেন। সেই বৈঠক নিয়েও রাজনৈতিক চাপান উতোর চলছে।

Related Articles

Back to top button