দেশনিউজপলিটিক্স

বন্যা পরিস্থিতির জন্য ডিভিসিকে দায়ী করে মোদিকে অভিযোগ মমতার, তারপর যা বললেন মোদী…

মমতার দাবি কার্যত মেনে নিলেন মোদী

×
Advertisement

রাজ্যের একাংশে বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দীর্ঘক্ষন ফোনে কথা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতার। জানা যায় সেখানেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অভিযোগ করেছিলেন, এই সমস্ত বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে শুধুমাত্র দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের জল ছাড়ার জন্য। এই ফোনেলাপের পরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অফিস থেকেই অফিশিয়ালি টুইট করে জানানো রাজ্যের একাংশে বন্যা পরিস্থিতির জন্য বাঁধ থেকে জল ছাড়া মূলত দায়ী। প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে কার্যত এরকম একটি টুইট আসার পরেই মমতার অভিযোগে সীলমোহর পড়লে বলেই মনে করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

Advertisement

তৃণমূলের তরফ থেকে বারবার দাবি করা হয়েছিল দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশন তাদের বাঁধ থেকে বার বার জল ছাড়ছে বলেই রাজ্যে এরকম বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ফোন আলাপ করে তার থেকে সুরাহা চেয়ে পাঠিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বারংবার অভিযোগ করেছিলেন সাম্প্রতিক বন্যা পরিস্থিতি সম্পূর্ণরূপে মানব নির্মিত। তেনুঘট, পাঞ্চেত এবং মাইথন থেকে প্রায় ২ লক্ষ কিউসেক জল ছেড়ে দিয়েছে দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশন। এবং ঠিক এই কারণেই হাওড়া হুগলি, দুই বর্ধমান, বীরভূম এবং পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছ।

তার সঙ্গেই নদীগুলিতে নাব্যতা কমে যাওয়ার মূল কারণ হিসেবে দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের অকর্মণ্যতাকে দায়ী করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই নিয়ে দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশন কে তীব্র ভৎসনা করেন তিনি। তারপরেই প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিকে ফোন করে বাংলার জন্য সাহায্য এবং এই অবস্থার সুরাহা করার ব্যবস্থা করার কথা জানান মমতা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, সেদিন পর্যন্ত বন্যার কারণে বাংলায় ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারপর থেকে আজ পর্যন্ত আরো ৭ জন মারা গিয়েছেন এই বর্ষার কারণে। ফলে বর্তমানে বন্যায় মৃতের সংখ্যা ২৩। ক্ষতি হয়েছে লক্ষাধিক মানুষের এবং কয়েক লক্ষ্য হেক্টর জমির।

Advertisement

অন্যদিকে বুধবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির দপ্তর থেকে টুইট করে বন্যা পরিস্থিতির কারণ হিসেবে সরাসরি দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশন এর জল ছাড়া কে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে করা টুইটে লেখা হয়েছে, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কথা বলেছেন। জলাধার থেকে জল ছাড়ার জন্য রাজ্যের বিভিন্ন অংশে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রধানমন্ত্রী সমস্ত রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মানুষদের সুরক্ষা এবং কুশল এর জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রার্থনা করেছেন।” এই টুইট আসার পরেই রাজনৈতিক মহল সরগরম হয়ে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই টুইট করে সরাসরি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর দাবিকে সায় দিলেন। তাই বন্যা পরিস্থিতি কে কেন্দ্র করে রীতিমতো নতুন খেলা শুরু হয়েছে রাজ্য বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে।

Related Articles

Back to top button