টলিউডবিনোদন

২ মাসের ইউভানকে গান্ধীজির গল্প শোনাচ্ছেন রাজ, ছবি ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

Advertisement

কয়েক মাস আগেই জন্ম হয়েছে টলিটাউনের বিখ্যাত পরিচালক রাজ চক্রবর্তী ও অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলীর একমাত্র পুত্রসন্তান ইউভানের। এই মুহূর্তে ইউভান হয়ে উঠেছে টলিটাউনের অন্যতম স্টারকিড। জনপ্রিয়তার নিরিখে সে ছাপিয়ে গিয়েছে তার সেলিব্রিটি বাবা-মাকেও। তবে এটা হয়েছে অবশ্যই তার বাবা রাজ চক্রবর্তী ও মা শুভশ্রীর দৌলতে। ইউভানের জন্মের পর থেকে তার প্রত্যেকটি মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন তার বাবা-মা। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউভানের নামে একটি আলাদা অ্যাকাউন্ট খুলেছেন রাজ। তিনি জানিয়েছেন, প্রতিদিন সকালে বেশ কয়েক ঘন্টা তিনি কাটান ইউভানের সঙ্গে। ইউভানকে তিনি সেই সময় অনেক গল্প বলেন যার মধ্যে রয়েছে গান্ধীজির কাহিনীও। সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউভানের ছবি শেয়ার করা হলে নেটিজেনরা ভালোবাসায় ভরিয়ে দেন। কিছুদিন আগেই শুভশ্রী তাঁর ভাগ্নী সৃষ্টি ও ইউভানের একটি ভিডিও শেয়ার করে বলেছেন, ইউভান কথা বলতে শিখে গেছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ইউভান তার মুখ দিয়ে বিভিন্ন আওয়াজ করছে মনের ভাব প্রকাশ করার জন্য। সৃষ্টিও তা এনজয় করছেন।

এই ভিডিওটি পোস্ট করার পর রীতিমত ট্রোল করা হয় শুভশ্রীকে। নেটিজেনরা শুভশ্রীকে গুজব ছড়াতে বারণ করেন। মেডিক্যাল সায়েন্স অনুযায়ী, কোনো শিশু যদি তার দু’মাস বয়সে মুখ দিয়ে বিভিন্ন আওয়াজ করে মনের কথা জানাতে চায়, তাহলে তাকে ‘কথা বলা’ বলে না। এমনকি এই ঘটনাতে এটাও প্রমাণিত হয় না, শিশুটি ভবিষ্যতে স্বাভাবিক ভাবে কথা বলতে পারবে কিনা। শিশুর এক-দেড় বছর বয়স থেকে তার সঠিকভাবে কথা বলার শুরু হয়। সেই সময় ছোটখাটো শব্দ বলার মাধ্যমে শুরু হয় কোনো শিশুর কথা বলা। সেলিব্রিটিরা যখন কোনো সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করেন, তখন তাঁদের মনে রাখা উচিত, সমাজের প্রতি তাঁদের দায়বদ্ধতা রয়েছে। সাধারণ মানুষ সেলিব্রিটিদের ‘আইকন’ বলে মনে করেন। তাঁরা যদি সমাজকে ভুল বার্তা দেন, তাহলে তা তাঁদের ইমেজকেও ক্ষতিগ্রস্ত করে।

ইউভানের জন্মের পর থেকে তার প্রত্যেকটি মুহূর্তের ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন তার বাবা-মা রাজ ও শুভশ্রী। এর ফলে ইউভানের খ্যাতি ছড়িয়ে পড়লেও তা কতটা যুক্তিযুক্ত এটা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেক শিশু বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলেছেন, ‘স্টারকিড’ হওয়ার কারণে শৈশব থেকেই ইউভান স্পটলাইটে রয়েছেন। কিন্তু রাজ ও শুভশ্রী যেভাবে ইউভানের প্রতিটি মুহূর্ত সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করছেন, তাতে ভবিষ্যতে তার শৈশব যথেষ্ট মানসিক চাপের সম্মুখীন হতে পারে। কিন্তু শুভশ্রী ও রাজ এই সব কিছু না ভেবে ইউভানের ছবি শেয়ার করে চলেছেন।

Tags

Related Articles

Back to top button