টলিউডবিনোদন

টেকনিশিয়ানদের প্রাপ্য টাকা মেটাতে না পারায় জি বাংলার কিছু সিরিয়ালের শুটিং বন্ধ

Advertisement

জি বাংলা এবং সান বাংলার ধারাবাহিকের শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হল শুক্রবার থেকে। ফেডারেশনের পক্ষ থেকেই এই বার্তা এসেছে চ্যানেল কর্মকর্তাদের কাছে। কারণটা করোনা সংক্রান্ত মনে হলেও সেটি একদমই নয়। সংবাদমাধ্যমের সূত্রে জানা তাদের এই লোকডাউনের প্রথম থেকেই চ্যানেল কর্তৃপক্ষ কথা দিয়েছিল তাদের মাসিক থাকা দেবেন। কিন্তু সেই টাকা আজ পর্যন্ত সেই কর্মীরা পায়নি।

সেই সংবাদমাধ্যম চ্যানেলের কর্মকর্তারা জানান, চ্যানেলের টেকনিশিয়ানদের এই প্যানডেমিক এর মধ্যে কিছু টাকা দেওয়ার কথা ছিল কিন্তু তারা দেয়নি। এমন প্রতিশ্রুতি দিয়েও তাদেরকে সাহায্য করতে আসেননি তারা। ফেডারেশনের সম্পাদক স্বরূপ বিশ্বাস বললেন, “প্যান্ডেমিকের সময় যে টাকা দেওয়ার কথা ছিল তা আজও এসে পৌঁছয়নি। গত শুক্রবার থেকে সমস্যা বাড়তে থাকে। আমি রোজই বলি আজ টাকা আসবে। টাকা আসে না। তাই টেকনিশিয়ানরা একটা নির্দিষ্ট দিনের দাবি করেছেন চ্যানেলের কাছে। সেই দিনটা জানতে পারলেই কাজ শুরু হবে”।

এই বিষয়টি ভালোভাবে নিচ্ছে না চ্যানেল কর্তৃপক্ষ, তারাও তাদের দাবি জানান। তাদের কথায়, এই অতিমারীর সময় টাকা দেয় কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি। সেখান থেকে টাকা আসতে একটু সময় লাগে, তাই বলে হঠাৎ করে শুটিং বন্ধ করে দেওয়া যায়? এইভাবে শুটিং বন্ধ করলে তাদের যা টাকা রোজগার হতো সেই টাকাও তো বন্ধ হয়ে যাবে? লন্ডনের পর এই করে যে ক্ষতি হবে সেই ক্ষতির দায়ভার কে নেবে? এই লাভ এবং ক্ষতি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিচ্ছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ।

স্বরূপ বিশ্বাসের বিরুদ্ধে টেকনিশিয়ান রাম পাল্টা প্রশ্ন তুলে বলেন, “এখনও অনেক ধারাবাহিক কোভিড ইনসিয়োর‌্যান্সের বিষয়টাও সম্পূর্ণ করেনি। এখন আমাদের সংক্রমণ এত বাড়ছে। এই সময় অন্তত সকলের কাছে কোভিডের বিমা থাকা উচিত। আজ শুট করতে করতে কারও যদি কিছু হয় তার দায়িত্ব কে নেবে? আমরা ফেডারেশন থেকে কিন্তু যথাসাধ্য আর্থিক সাহায্য করেছি। আর কত করব?”

এই প্যানডেমিক এর মধ্যে টেকনিশিয়ানদের পাওয়ার দরকার সেই টাকা যতদিন না পাছে দ্বারা আপাতত শুটিং বন্ধ রাখবেন বলেই দাবি জানিয়েছেন। সান বাংলা এবং জি বাংলার কিছু কিছু সিরিয়ালের শুটিং বন্ধ হচ্ছে। ‘কাদম্বিনী’, ‘রানী রাসমণি’ এবং ‘যমুনা ঢাকি’ এই সিরিয়াল গুলির আপাতত শুটিং স্থগিত রাখছে এই দাবির জন্য।

Tags

Related Articles

Back to top button
×
Close
Close