আজকের দিনলিপিনিউজরাজ্য

Cyclone Jawad: ডিসেম্বরের শুরুতেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’, সপ্তাহান্তে ঝড়–বৃষ্টির সম্ভাবনা বাংলায়

Advertisement

ফের হাজির নিম্নচাপ। যার জেরে সপ্তাহ শেষে ঝড়–বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বঙ্গ জুড়ে। সাথে রয়েছে ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কাও। আলিপুর আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগর এবং দক্ষিণ আন্দামান সাগরের উপর নিম্নচাপ ঘনীভূত হচ্ছে। তার জেরেই বৃষ্টির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এমনকি সপ্তাহ শেষে বাংলা জুড়ে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি বাদ যাবে না কলকাতাও। জানা গেছে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় আরও শক্তিশালী হবে এই নিম্নচাপ। ক্রমশ সেই নিম্নচাপ পশ্চিম, উত্তর–পশ্চিম দিকে অগ্রসর হবে। এর প্রভাবে সপ্তাহের শেষের দিকে অর্থাৎ শনি ও রবিবার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

Advertisement

ডিসেম্বরের শুরুতেই আবারো পূর্ব ভারতে আছড়ে পড়তে পারে প্রবল ঘূর্ণিঝড়। এই নিম্নচাপের নাম জাওয়াদ। আগামী শনিবার সকালের দিকে এই শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশ-ওড়িশা উপকূলের মধ্যে আছড়ে পড়তে পারে। তবে শেষমুহূর্তে পূর্ব উপকূলের গা ঘেঁষে বেরিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও আছে। ভারতীয় মৌসম ভবনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ থাইল্যান্ড এবং সংলগ্ন অঞ্চলে একটি শক্তিশালী নিম্নচাপ অবস্থান করছে। আগামী ১২ ঘণ্টায় আন্দামান সাগরে পৌঁছে যাবে। তারপর পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বৃহস্পতিবারের মধ্যে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। এরপর এই নিম্নচাপ দক্ষিণ-পূর্ব এবং সংলগ্ন পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করবে। পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় মধ্যে বঙ্গোসাগরের উপর তা ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। তারপর আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হবে ঘূর্ণিঝড়। বর্ষার পর এটাই প্রথম ঘূর্ণিঝড় হতে চলেছে রাজ্যে। শেষপর্যন্ত  শনিবার ৪ ডিসেম্বর সকালের দিকে উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশ-ওড়িশা উপকূলের মধ্যে আছড়ে পড়তে পারে।

মৌসম ভবনের তরফ থেকে আরো জানানো হয়েছে, ঘণ্টায় ৮৯ কিলোমিটার থেকে ১১৭ কিলোমিটার বেগে বইতে পারে এই জাওয়াদ ঝড়। তবে সেই ঘূর্ণিঝড় ওড়িশা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে আবার ভারতের পূর্ব উপূকল ঘেঁষে বেরিয়ে যাবে, তা এখনও পুরোপুরি নিশ্চিত নয়। পূর্ব উপকূলের গা ঘেঁষে যদি বেরিয়ে যাও তাও এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ওই অঞ্চলে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে।

Advertisement

উপকূলীয় ওড়িশায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। কয়েকটি জায়গায় বিক্ষিপ্তভাবে অত্যধিক ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। সংলগ্ন এলাকা তথা ওড়িশার একাধিক জেলা, পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তী জেলাএবং উত্তর উপকূলীয় অন্ধ্রপ্রদেশেও বিক্ষিপ্তভাবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। আগামী রবিবার পশ্চিমবঙ্গ এবং সংলগ্ন উত্তর উপকূলীয় ওড়িশার কয়েকটি জায়গায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আছে।

বুধবার তিলোত্তমাফ আকাশ পরিষ্কার এবং রৌদ্রজ্জ্বল থাকবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আগামী ২৪ ঘণ্টা কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকবে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামবে। এই  নিম্নচাপের সম্ভাবনায় ঠান্ডা ভাব কিছুটা কমবে। ঠান্ডা বাতাস বইলেও তাতে শীতের আভাস থাকবে না। ভোরের গভীর কুয়াশা বেলা বাড়ার সঙ্গে ধোঁয়াশায় পরিণত হচ্ছে, যার ফলে দৃষ্টিমানতা কমছে। পরিবেশবিদরা বলছেন, ধোঁয়াশার কারণ দূষণ বৃদ্ধি‌। 

Advertisement

Related Articles

Back to top button