×
দেশনিউজ

ভালভ যুক্ত N-95 মাস্ক ডেকে আনতে পারে বিপদ, সতর্কবার্তা স্বাস্থ্যমন্ত্রকের

করোনার জীবাণু থেকে বাঁচতে N-95 মাস্ক ব্যবহার করা মোটেই নয়। বরং এর বদলে বাড়িতে তৈরি সাধারণ কাপড়ের মাস্ক অনেক নিরাপদ।

Advertisement

করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে মানুষের জীবনে একটি দৈনন্দিন ও অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে মাস্ক। কেন্দ্র ও রাজ্য দুই সরকারের তরফেই মানুষের মধ্যে করোনা ভাইরাস থেকে সচেতন থাকতে বারবার মাস্ক পরতে বলা হয়েছে। যার ফলে বাজারে হটাৎ করেই N-95 মাস্ক সহ কাপড়ের তৈরি মাস্কের চাহিদাও রীতিমতো বেড়ে যায়। আর তখন N-95 মাস্ক বাজারে চড়া দামে বিক্রি হয়। মানুষ নিজেকে সুস্থ রাখতে ও করোনার জীবাণু থেকে বাঁচতে সেই মাস্ক আকাশছোঁয়া দামেও কিনে নেন। কিন্তু এই N-95 ব্যবহার কতটা নিরাপদ?

Advertisement

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে একটি সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে N-95 মাস্কের ব্যবহার নিয়ে। রাজ্যগুলিকে ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে মাস্কের ব্যবহার নিয়ে মানুষের মধ্যে থাকা ভ্রান্ত ধারণা দূর করতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, করোনার জীবাণু থেকে বাঁচতে N-95 মাস্ক ব্যবহার করা মোটেই নয়। বরং এর বদলে বাড়িতে তৈরি সাধারণ কাপড়ের মাস্ক অনেক নিরাপদ। বিশেষ করে ভালভ যুক্ত N-95 মাস্ক ব্যবহার করা বিপদ আটকানোর থেকে ক্ষতিটাই বেশি।

এর কারণ হিসেবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ডিরেক্টর জেনারেল অফ হেলথ সার্ভিসেস-এর তরফে জানান হয়েছে, মাস্ক ব্যবহার করার মূল উদ্দেশ্য হল কারোর মুখের লালারস কথা বলার সময় যেনো অন্য ব্যক্তির চোখে মুখে না যায়৷ কিন্তু ভালভ যুক্ত N-95 মাস্ক এই ড্রপলেটগুলিকে আটকাতে সক্ষম হচ্ছে না। আর তার ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির শরীর থেকে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। ভালভ যুক্ত N-95 মাস্কের চাইতে বরং বাড়িতে তৈরি সাধারণ কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার অনেক বেশি নিরাপদজনক, এমনই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

Advertisement

Related Articles

Back to top button