টলিউডবিনোদনভাইরাল & ভিডিও

Yuvaan chakraborty: মালদ্বীপে ফুলগাছ নিয়ে ছোট্ট ইউভানের খেলা, ছেলের আদরমাখা মুহূর্ত শেয়ার করলেন রাজ

ইউভান চক্রবর্তী! বয়স মাত্র ১বছর! ১বছরে পা দেওয়ার কিছুদিন পরই৷ ইউভান তার বাবা মা অর্থাৎ রাজ চক্রবর্তী ও শুভশ্রী গাঙ্গুলীর সঙ্গে মালদ্বীপ উড়ে গিয়েছে। তাঁর এটাই প্রথম বিদেশ সফর বলে কথা তাই একটু স্পেশাল তো হবেই।ইতিমধ্য মালদ্বীপ থেকে এই একরত্তির নানান মিষ্টি ছবিই ভাইরাল হয়েছে নেটদুনিয়াতে। এবার রাজ সোমবার সকালে ইউভানের আরও একটি ছবি শেয়ার করেছেন।

রাজের শেয়ার করা ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ইউভানের পরনে হালকা নীল রঙের প‍্যান্ট ও সাদা শার্ট। ইউভান মালদ্বীপের সুন্দর প্রকৃতির মাঝে নিজের মতো করে খেলা করতে ব্যস্ত। ছবিটি শেয়ার করে রাজ সকল অনুগামীদেরকে সুপ্রভাত জানিয়েছেন। এই সুন্দর ছবিতে ইউভানকে দেখা যাচ্ছে ফুলগাছের কাছে দাঁড়িয়ে থাকতে আর ফুলগুলিকে অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে। শুভশ্রী এর আগে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ইউভান ধীরে ধীরে ফুল, পাখি চিনছে। ছবিটি দেখেও এমনটাই মনে হচ্ছে।
একরত্তি ইউভানের এই ছবিটি দেখে শ্রীমা ভট্টাচার্য বলেছেন ইউভান একটা পুতুল।

সম্প্রতি ইউভান এক বছরের জন্মদিন বাড়িতেই পুজো দিয়ে আর কেক কেটে উদযাপন করা হয়েছে। জন্মদিনের দিন মায়াপুরের ইস্কন থেকে কয়েকজন সন্ন্যাসীও এসেছিলেন। এদিন তাঁদের হাতে রাজশ্রীর বাটিতে অধিষ্ঠিত রাধাকৃষ্ণের মূর্তির অভিষেক হয়েছে। ইউভানের জন্মদিনের ঠিক সাত দিন আগেই রাজশ্রী ছেলেকে নিয়ে পুরীর জগন্নাথ মন্দির দর্শনে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে প্রথমবার সমুদ্র দেখতে পেয়ে খুব আনন্দ পেয়েছিল ইউভান৷ প্রথমবার মায়ের হাত ধরে হাঁটি হাঁটি পায়ে সমুদ্র ঘোরেন একরত্তি। সেই ছবিও ভাইরাল হয়।

গত বছর করোনাকালে সেপ্টেম্বরের ১২ তে জন্ম হয়েছে ইউভানের। তার জন্মের,আগে রাজ ও শুভশ্রীর পরিবারে নেমে এসেছিল এক প্রকান্ড শোকের ছায়া। করোনায় আক্রান্ত হয়ে কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের ফলে প্রয়াত হয়েছিলেন রাজের বাবা। অন্যদিকে রাজ ও করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই সময় অন্তঃসত্ত্বা শুভশ্রীকে সাবধানে থাকতে হয়েছিল। এরপর ইউভানের জন্ম হয়। ইউভানকে আঁকড়ে ধরে আবারও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে উঠেছিলেন পরিবারের সদস্যরা। এবছরও করোনার দ্বিতীয় ওয়েভে কোভিড আক্রান্ত হন শুভশ্রীও। তবে সুস্থ হয়ে কাজ করছেন। পাশাপাশি রাজ ও এখন ব্যারাকপুরের বিধায়ক। দুজনে হাজার ব্যস্ততার মধ্যে থেকেও ছেলেকে সময় দিতে ভোলেননা। হাজার ব্যস্ততা ছেড়ে এখন তিনজনেই মালদ্বীপে সমুদ্রের নৈস্বর্গিক দৃশ্য উপভোগ করছেন।

Related Articles

Back to top button