×
জীবনযাপনস্বাস্থ্য ও ফিটনেস

অতিরিক্ত ওজন নিয়ে চিন্তিত? এই ৪ পানীয় আপনাকে করবে স্লিম

Advertisement

আপনি কি আপনার অতিরিক্ত ওজন নিয়ে চিন্তিত? আপনি কি ওজন কমানোর সহজ উপায় খুঁজছেন? আমরা আপনাকে বলে রাখছি যে আপনার সচেতন হওয়া উচিত এবং ওজন কমাতে অনেক প্রচেষ্টা, ইচ্ছাশক্তি ও ধৈর্যের প্রয়োজন। ডায়েট হল আপনার ওজন কমানোর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদ্ধতি। এর পাশাপাশি মাঝে মধ্যে যোগ – ব্যায়াম করাও সাহায্য করবে ওজন কমাতে। কেটো ডায়েট, বিরতিহীন উপবাস, বায়ু ডায়েট এবং অন্যান্য ফ্যাট ডায়েট আজকাল ওজন কমানোর জন্যে ব্যক্তিদের মধ্যে জনপ্রিয়। কিন্তু এইসব পদ্ধতিই খুব কষ্টকর ও ব্যয়বহুল। কিন্তু আপনি কি জানেন যে আরও অনেক সহজ পদ্ধতি রয়েছে যা আপনাকে দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করতে পারে?

Advertisement

আমরা যে পদ্ধতি জানতে চলেছি আপনাকে, সেই ওজন কমানোর কৌশলে আপনাকে কোনও খাবার এড়িয়ে যেতে হবে না। জল আমাদের শরীরের গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আমরা জানি সে শরীরের ৭০% ই জল থাকে তাই আপনার শরীরের ওজন জলের চেয়ে ভালো আর কিছুই নিয়ন্ত্রন করতে পারে না। প্রতিদিন ৮ গ্লাস বা দুই লিটার জল পান করলে শুধু আপনার ওজনই নিয়ন্ত্রণে আসে না, শরীরও ভেতর থেকে পরিষ্কার থাকে।স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন 2-3 লিটার জল পান করা উচিত।

আপনাদের জন্যে জলে ব্যাবহার করে ওজন কমানোর কিছু টিপস রইলো:

Advertisement

লবু জল: সাইট্রাস সমৃদ্ধ ফল লেবু ডিটক্সিং এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে। লেবুর রস মেটাবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞরা হালকা গরম জলে লেবু মিশিয়ে পান পরামর্শ দেন। এতে মধুও যোগ করতে পারেন। যাইহোক, আপনি যদি অ্যাসিডিটির সমস্যা থাকে তবে এটি প্রতিদিন পান করবেন না, কিন্তু ১-২ দিন অন্তরে পান করতেই পরেন।

জিরের জল: জিরা হল এমনই একটি মশলা যা প্রতিটি ভারতীয় খাবারে স্বাদ বাড়াতে ও ঔষধি গুণের কারণে ব্যবহৃত হয়। জিরাতে খুব কম ক্যালোরি রয়েছে, হজমের উন্নতি ঘটায়, শরীরকে ডিটক্সিফাই করে, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে, রক্তে হেমগ্লবিনের মাত্রা বৃদ্ধি করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সারারাত জলে কিছু জিরা ভিজিয়ে রাখুন এবং স্বাদ বাড়াতে লেবু, আদার রস ও মধু যোগ করে পান করুন। ওজন কমানোর সাথে অন্যান্য উপাকিরিতা গুলিও লাভ করুন।

মৌরি জল: রাতে দুই চামচ মৌরি উষ্ণ জলে ভিজিয়ে রাখুন এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং সন্ধায় জল খাবারের আগে পান করুন। আপনি দিনে দুবার চায়ের পরিবর্তে এই জল পান করতে পারেন। মৌরি ও জেররের মতন বিভিন্ন ঔষধি গুণ রয়েছে এবং মেটাবোলিজম এ সাহায্য করায় ওজন কমানোর জন্যেও উপযোগী।

আদার রসের সাথে জল: সকালে খালি পেটে আদার রস জলে মিলিয়ে খেলে তা ওজন কমাতে সাহায্য করে। গবেষণা অনুসারে, সর্বি যুক্ত ও বেসিনজন শরীরে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস এবং জলনের সৃষ্টি করে। অক্সিডেটিভ স্ট্রেস শরীরে ফ্রি র‌্যাডিকেলের দ্বারা হওয়া ক্ষতির কারণে দেখা দেয়। আদার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যগুলি এই ফ্রি র‌্যাডিক্যালগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে এবং এর অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্যগুলি ইনফ্লামেশনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে ও আপনাকে ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

Related Articles

Back to top button