জীবনযাপনসৌন্দর্য

Skin Care Tips: ৫০ বছর বয়সেও তরুণ দেখাবে, দূর হবে বলি রেখা, এই উপাদানটি ব্যাবহার করুন

×
Advertisement

প্রকৃতির নিয়ম অমান্য করা খুব কঠিন, কিন্তু মানুষ নিজের বুদ্ধি ও প্রকৃতির কিছু দেন থেকে নিজের জন্যে উপযোগী জিনিস তৈরি তে খুব সক্ষম। এই যুগে নারী হোক বা পুরুষ, সবাই তরুণ দেখতে চায় নিজেকে, কিন্তু একটি বয়সের পর ত্বকে বার্ধক্য আসাটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া তা অস্বীকার করা যায় না। সেখানে উল্টো ডায়েট এবং ভুল জীবনযাপনের কারণে কিছু মানুষের বয়সের আগেই বার্ধক্যের লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে। মুখের বলিরেখা এবং সূক্ষ্ম রেখা দূর করতে, বেশিরভাগ ধরণের পণ্য, সৌন্দর্য চিকিত্সা নেওয়া হয়, যা ব্যবহারে ত্বক খারাপ হতে পারে।

Advertisement

আপনিও যদি বার্ধক্যজনিত লক্ষণ দেখে বিরক্ত হন, তাহলে কলা ব্যবহার করুন। এটি ত্বককে কোমল, উজ্জ্বল ও উজ্জ্বল করে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কলার ফেসপ্যাক লাগালে অকাল বার্ধক্যের উপসর্গেও আরাম পাওয়া যায়। আসুন নীচে জেনে নেওয়া যাক কলার কোন ফেসপ্যাক বার্ধক্যজনিত লক্ষণগুলি দূর করতে পারে।

১)কলা-বেসন ফেস প্যাক:-

Advertisement

প্রথমে অর্ধেক পাকা কলা নিন। এবার এতে ১ চা চামচ বেসন দিন। তারপর আধা চা চামচ লেবুর রস মেশান।এবার মুখে ও ঘাড়ে লাগান।১৫ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন।

উপকারিতা- এই ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করলে মুখে উজ্জ্বলতা আসবে। ত্বক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কলা ও বেসন দিয়ে ফেসপ্যাক লাগালে ত্বকের বলিরেখা, ফাইন লাইনও কমে যায়।

২) কলা-অ্যাভোকাডো ফেস প্যাক:-
প্রথমে একটি পাকা কলা এবং অ্যাভোকাডো নিন।এবার এতে ১ চা চামচ মধু যোগ করুন। সব ভালো করে ম্যাশ করুন। তারপর মুখে লাগান এই পোস্টটি। 20 মিনিট পর পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

উপকারিতা- এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের রং উন্নত করে। মুখের বলিরেখা ও সূক্ষ্ম রেখা দূর হয়। নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বক হয়ে ওঠে সুন্দর, কোমল ও উজ্জ্বল।

৩) কলা- পেঁপে ফেস প্যাক:-
প্রথমে আপনি একটি কলা নিন। এবার একটি পাকা পেঁপে ম্যাশ করুন কলার সাথে। তারপর এতে শসার রস যোগ করুন। সব ভালো করে মিশিয়ে নিন। সারা মুখে, গলায় লাগান। ১৫ মিনিট পর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

উপকারিতা- এই ফেসপ্যাক ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা দূর হবে। এছাড়াও ত্বক হয়ে উঠবে কোমল ও সতেজ। বিশেষ বিষয় হল কলা এবং পেঁপের ফেসপ্যাক লাগালে মুখের বলিরেখা ও ফাইন লাইনও দূর হয়।

এই উপাদান, পরামর্শ সহ, শুধুমাত্র সাধারণ তথ্য প্রদান করার উদ্দেশে লেখা হয়েছে। এটা কোনোভাবেই যোগ্য চিকিৎসা মতামতের বিকল্প নয়। আরও বিস্তারিত জানার জন্য সর্বদা একজন বিশেষজ্ঞ বা আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন। ভারত বার্তা এই তথ্যের দায় স্বীকার করে না।

Related Articles

Back to top button