খেলানিউজফুটবল

দ্বিতীয় ম্যাচেও ভরাডুবি, মুম্বই সিটি এফসির বিরুদ্ধে লজ্জার হার ইস্টবেঙ্গলের

Advertisement

অনেক কষ্টে আইএসএল খেলার সুযোগ পেলেও সেই সুযোগকে যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারছে না এস সি ইস্টবেঙ্গল। একেবারে শেষ মুহূর্তে সকলকে চমকে স্পনসর সমস্যা মিটিয়ে আইএসএল খেলার টিকিট ঘরে তুলেছিলেন দেবব্রত সরকাররা। তারপর থেকে লাল-হলুদ সমর্থকদের মধ্যে উচ্ছ্বাসের অন্ত ছিল না। কিন্তু বল পায়ে মাঠে নামার শুরুর দিন থেকেই সেই উচ্ছ্বাসে কেমন যেন জল ঢালতে থাকে রবি ফাউলারের ছেলেরা। ইস্টবেঙ্গলের প্রথম ম্যাচে ছিল ডার্বি। এটিকে-মোহনবাগানের বিরুদ্ধে অভিষেক ম্যাচ দিয়ে আইএসএল অভিযান শুরু করেছে মশাল বাহিনী। কিন্তু প্রথম থেকেই আগুন না জ্বালিয়ে যেন মশাল নিভে যাচ্ছিল। কলকাতা ডার্বিতে ২-০ গোলে এটিকে-মোহনবাগানের কাছে হারের পর গতকাল, মঙ্গলবার জয়ের খোঁজে দ্বিতীয় ম্যাচে মুম্বাই সিটি এফসির বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল লাল-হলুদ শিবির। কিন্তু সেই ম্যাচেও ৩-০ গোলে লজ্জার হার হারতে হয়েছে ফাউলারের ছেলেদের।

এদিন প্রথমার্ধের শুরুতেই বড় ধাক্কা খায় ইস্টবেঙ্গল। পাঁচ মিনিটের মাথায় চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় ইস্টবেঙ্গল অধিনায়ক ড্যানি ফক্সকে। এই ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই ২০ মিনিটের মাথায় লে ফন্দ্রের গোলে এগিয়ে যায় মুম্বই সিটি এফসি। তারপর রক্ষণভাগ সামনে গোল শোধ করতে মরিয়া হয়ে ওঠেন পিলকিংটন, মাঘমারা। কিন্তু কোনও গোল তারা করতে পারেনি। উল্টে ফক্সের বেরিয়ে যাওয়ার ফলে রক্ষণভাগ সামলাতে না পেরে নিজেদের দুর্বলতা বারবার প্রকাশ করছিল ইস্টবেঙ্গল। প্রথমার্ধে তাই স্কোরলাইন ছিল ১-০।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও একইভাবে নড়বড়ে, বেসামাল দেখায় ইস্টবেঙ্গলকে। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই পেনাল্টি থেকে দলের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন সেই লে ফন্দ্রেই। তারপর ম্যাচের বয়স যখন ৫৯ মিনিট, তখন স্যান্টানার গোলে স্কোরলাইন হয় ৩-০। আর তিনটি গোল হজম করার পর কোনওভাবেই মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি ফাউলারের ছেলেরা। তাই অবশেষে দ্বিতীয় ম্যাচেও লজ্জার হার হেরে মাঠ ছাড়তে হয়েছে এসসি ইস্টবেঙ্গলকে।

Tags

Related Articles

Back to top button