×
দেশনিউজ

চীনকে তছনছ করতে লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন করা হতে পারে রাফাল যুদ্ধবিমান

আগামী ২৭ জুলাই প্রথম ধাপে আম্বালা এয়ারবেসে ৬ টি রাফাল যুদ্ধবিমান পৌঁছাতে পারে। 

Advertisement

চীনকে চাপে রাখতে সবদিক থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত। ফ্রান্সের থেকে ৫৯০০০ কোটি টাকার বিনিময়ে ৩৬ টি রাফাল যুদ্ধবিমান কিনছে ভারত। ২০১৬ সালে জরুরি ভিত্তিতে এই চুক্তি করা হয়েছিল। একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদমাধ্যম অনুসারে এই যুদ্ধবিমান দেশের কাছে এলেই লাদাখ সীমান্তে রাফাল যুদ্ধবিমান মোতায়েন করতে পারে ভারতীয় বায়ুসেনা। জানা গেছে, এই সপ্তাহেই ভারতীয় বায়ুসেনার কমান্ডারদের একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক আছে। আর এই বৈঠকেই সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

Advertisement

আগামী ২২ থেকে ২৪ জুলাই নয়াদিল্লিতে বায়ুসেনার বৈঠক রয়েছে। আর ওই বৈঠকেই চীনের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে, আর রাফালের ব্যবহার নিয়েও আলোচনা হতে পারে। শুধু তাই নয়, ভবিষ্যতের জন্য বায়ুসেনার শক্তি বৃদ্ধির জন্য কি কি কেনা প্রয়োজন, সেটা নিয়েও আলোচনা হতে পারে। ফ্রান্সের কাছে ভারত অনুরোধ করেছে যে জোট দ্রুত সম্ভব বায়ুসেনার হাতে রাফাল যুদ্ধবিমান তুলে দেওয়া হোক। আর সেই চেষ্টাই করছে ফ্রান্স। সম্ভবত, আগামী ২৭ জুলাই প্রথম ধাপে আম্বালা এয়ারবেসে ৬ টি রাফাল যুদ্ধবিমান পৌঁছাতে পারে।

বায়ুসেনার এক আধিকারিক জানিয়েছেন যে রাফাল যুদ্ধবিমান ব্যবহার ও ওই বিমান সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় শেখার জন্য গত ১ বছর ধরে ফ্রান্সে প্রশিক্ষণ নিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার অফিসাররা। লাদাখের কোন কোন জায়গাতে রাফাল যুদ্ধিবিমানের ব্যবহার করা যায়, সেটা নিয়ে চূড়ান্ত রূপরেখা তৈরী করে ফেলতে চাইছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

Advertisement

ইতিমধ্যেই আকাশপথে নজরদারি চালানোর জন্য মিগ ২৯ ফাইটার জেট, সুখোই ৩০এস, চিনুক হেলিকপ্টার সহ একাধিক অস্ত্রগুলিকে দিয়ে নজরদারি চালানোর চেষ্টা করছে বায়ুসেনা। এবার এর মধ্যে রাফাল যুক্ত হলে ভারতের শক্তি অনেকটা বাড়বে। মোট ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান নেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে জুলাইতে ৬ টি, বাকি ১৮ টি যেতে পারে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির মধ্যে। আর বাকিগুলি ২০২২ সালের এপ্রিল-মে মাসের মধ্যে আসতে পারে।

Related Articles

Back to top button