বলিউডবিনোদন

‘বলিউডে থাকবেন অথচ মাদক সেবন করবেন না’, দেখুন বলিউড পার্টির ভাইরাল ভিডিও

বলিউডে পা রাখলেই মাদক সেবন করতেই হয়। মাদক সেবন না করলে তাঁর কেরিয়ার তলানিতে গিয়ে ঠেকে। এমনটাই জানালেন বলিউডের এক নামজাদা অভিনেত্রী।

কঙ্গনার পর আর এক নামজাদা অভিনেত্রী বলিউডের কেচ্ছা উস্কে দিলেন। সংবাদমাধ্যমে তিনি জানান, রিয়া-সুশান্ত-কে ‘হানিট্র্যাপ’হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। অর্থাৎ রিয়া চক্রবর্তীকে বলিকা বাখড়া করা হয়েছে বলে দাবি এই অভিনেত্রীর। তাঁর মতে, বলিউডের ৮০ শতাংশ সেলিব্রিটিই মাদকের শিকার। যেকোনো হাউস পার্টি বা সেলিব্রেশনে মাদক অপরিহার্য। বরং যে মাদক নেবেন না তাঁকে গ্রামের মানুষ বলে গণ্য করা হয় বলিউডে। বলিউডের পার্টিগুলিতে মাদক সেবন চলে হু হু করে। বহু অভিনেতা, অভিনেত্রী ও প্রযোজক এই মাদকের শিকার। যদি কেউ এই মাদকের জোয়ারে গা না ভাসাতে পারেন তবে তাঁকে রীতিমত ইগনোর করা হয় বলে দাবি করেন এই অভিনেত্রী।

বলিউড পার্টিগুলিতে আদৌ কি কি হয় রইল তার ভিডিও।

জন্মদিন হোক বা অন্য যেকোনো সেলিব্রেশন, সবক্ষেত্রেই চলে অশ্লীল কার্যকলাপ ও নিষিদ্ধ মাদকের অপব্যবহার। রইল তার কিছু ঝলক।

উল্লেখ্য, সুশান্ত মৃত্যুর পর একমাত্র কঙ্গনা রানাউত সরব হয়েছিলেন। তিনিই বলেছিলেন বলিউডের ৮০ শতাংশ মানুষ মাদকাসক্ত। এবং যারা বলিউডে সদ্য পা রাখেন তাঁদের প্রথমে বিনা টাকায় মাদক দেওয়া হয়। বলিউডের অন্ধকার দিক ফাঁস করায় তাঁকে অনেক সংঘর্ষের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে যা কারোর অজানা নয়। এই সব মিলিয়ে কঙ্গনা মুম্বাই পুলিশের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁদের প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিয়েও আঙ্গুল তুলেছিলেন যার খেসারত কঙ্গনাকে দিতে হয়েছে। কিন্তু তাতেও দমে যাননি অভিনেত্রী।

Tags

Related Articles

Back to top button