দেশনিউজভাইরাল & ভিডিও

রাখির দিন বিষধর কেউটে সাপকে রাখি পরাতে গেলেন এই ব্যক্তি, কি হলো তারপর? ভাইরাল ভিডিও

হঠাৎ করেই তাদের মালিকের পায়ের উপরে কামড় বসিয়ে দিল ওই সাপ। ঘটনার পরে মনমোহনকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই মনমোহন শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

রাখি বন্ধন উৎসবে তিনি একটি অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী হয়ে রইল গোটা ভারত। বিহারের পার্টনার ছাপড়া জেলায় রাখি বন্ধন উৎসবের আনন্দের আবহ পরিণত হল একটি চরম দুঃখ জনক ঘটনায়। বিহারের এই অঞ্চলে একজন সাপুড়ে একজোড়া বিষাক্ত কেউটে সাপ কে রাখি বন্ধন উৎসবের দিন রাখি বাঁধার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন। জানা যাচ্ছে ওই ব্যক্তির নাম হল মনমোহন এবং তিনি একজন সাপুরে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন মনমোহন নিজে সাপ ধরতে জানতেন এবং এলাকায় সাপের খেলা দেখানোর জন্য তিনি অত্যন্ত পরিচিত। তার এই পরিচিতির জন্য তিনি এবার একটি অত্যন্ত বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করে ফেললেন। রাখি বন্ধন উৎসবের দিন তার দুটি সাপকে নিজের বোনের মত করে রাখি বাঁধার চেষ্টা করলেন তিনি। কিন্তু সাপ দুটির মনে হল তাদের মালিক তাদেরকে হত্যা করতে চাইছেন। তাই হঠাৎ করেই তাদের মালিকের পায়ের উপরে কামড় বসিয়ে দিল ওই সাপ। ঘটনার পরে মনমোহনকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানেই মনমোহন শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

ভিডিওতে গোটা ঘটনা টা দেখা যাচ্ছে। ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মনমোহন তার হাতে করে দুটি কেউটে সাপ ধরে রয়েছেন। তার এই খেলা দেখার জন্য প্রচুর লোক জমা হয়েছিল ওই এলাকায়। নিজের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির জন্য ঐদিন মনমোহন তার দুটি সাপকে রাঁখি পরানোর চেষ্টা করছিলেন। তারপরেই যখন হঠাৎ করে সেই সাপের মাথায় তিনি টিকা লাগাতে গেলেন, তখন আচমকাই সাপটি তার মালিকের পায়ে কামড় বসিয়ে দেয়। কিছুক্ষণ অব্দি সমস্যা হয়নি কিন্তু, তারপরেই আস্তে আস্তে শরীর খারাপ হতে শুরু করে। স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

জানা যাচ্ছে মনমোহন নিজের সাপ ধরতে পারতেন এবং বহুদিন ধরে গ্রামে যারা সাপের কামড়ে আহত হতেন তাদের চিকিৎসা করতেন তিনি। অবশ্য এই চিকিৎসা কিন্তু খুব একটা বড় সাপের ক্ষেত্রে হতো না। কেউটের মতো কোনো প্রচন্ড বিষধর সাপের ক্ষেত্রে এরকম কোনো চিকিৎসা কাজ করত না। স্থানীয়রা তাকে পরিবেশবান্ধব একজন মানুষ হিসেবে এবং একজন সাপ বিশেষজ্ঞের চোখে দেখতেন। কিন্তু এরকম একজন মানুষের সাপের কামড়ে মৃত্যু অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Related Articles

Back to top button