Today Trending Newsনিউজরাজ্য

Alapan Bandyopadhyay: মুখ্যসচিব পদ থেকে অবসর, মমতার মুখ্য উপদেষ্টা পদে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়

আগামীকাল থেকে মুখ্য উপদেষ্টা পদে কাজ শুরু করবেন তিনি

×
Advertisement

কেন্দ্র থেকে তলব করা হয়েছিল কিন্তু আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে কোনোভাবেই ছাড়তে চায়নি রাজ্য সরকার। সোমবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব পদ থেকে অবসর নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মজীবন শেষ করে এবারে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত হলেন আলাপন। প্রথম থেকেই মুখ্যমন্ত্রীর প্রিয় পাত্র হিসেবে পরিচিত ছিলেন। সঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রীর অত্যন্ত ভরসার পাত্র ছিলেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই এবারে আলাপনকে নিজের মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যে নতুন মুখ্যসচিব হিসেবে নিযুক্ত হলেন হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। আর স্বরাষ্ট্রসচিব হিসেবে এলেন বিপি গোপালিকা।

Advertisement

প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ মিটিং এর সময় উপস্থিত ছিলেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর থেকেই আলাপনের বদলি নিয়ে শুরু হয়েছে তরজা। শুক্রবার দিল্লি থেকে সরাসরি নোটিশ পাঠানো হয়, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে কেন্দ্রীয় সরকারের হয়ে কাজ করতে হবে। সোমবার সকালে তার দিল্লি যাওয়ার কথা ছিল কিন্তু সেই নির্দেশ তিনি পালন করেননি।

তার পরিবর্তে রবিবার বিকেল নাগাদ সস্ত্রীক তিনি গিয়ে উপস্থিত হলে নবান্নে। সোমবার সকালের জন্য কোন ফ্লাইটে তার নামে কোন টিকিট বুকিং দেখা গেল না। তারপর থেকেই মনে হচ্ছিল সোমবার তিনি কোনো বড় পদক্ষেপ নিতে চলেছেন। যেমন ভাবনা ঠিক তেমন কাজ, নিজের স্বাভাবিক কর্মজীবনের শেষ দিনে মুখ্য সচিবের পদ থেকে অবসর নিয়ে আগামীকাল থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে নতুন জীবন শুরু করবেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

Advertisement

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর কর্মজীবন এর মেয়াদ বৃদ্ধি করার জন্য কেন্দ্রকে আরজি জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজে। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এই আর্জি মেনে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারপরে, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর সঙ্গে এহেন আচরণে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একটি ভিডিওবার্তায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, “এটা শুধুমাত্র প্রতিহিংসামূলক আচরণ। ওরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সহ্য করতে পারেনা। এই কারণে আলাপনের ওপর এরকমভাবে শোধ তোলা হচ্ছে।” মুখ্যমন্ত্রী মমতার প্রশ্ন, যদি ডেকে পাঠাতে কি হয় তাহলে রাজ্যের সঙ্গে আগে কথা বলা উচিত, এভাবে হঠাৎ রাজ্যকে না জানিয়ে কাউকে চিঠি পাঠিয়ে দেওয়া যায় না। সঙ্গে এই পদক্ষেপ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে তুলোধোনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Related Articles

Back to top button