টলিউডবাংলা সিরিয়ালবিনোদন

Soumitrisha Kundu: জঘন্য এক্সপ্রেশনের পর , বিচ্ছিরি লিরিক্স’,বললেন নেটিজেনরা, ফের কটাক্ষ দেবী রূপী মিঠাই

এখন বাংলার এক নম্বর ধারাবাহিক বলতেই সকলের মুখে মুখে ঘোরে মুখে মুখে ঘোরে এখন একটাই নাম। হ্যাঁ ঠিক ধরেছেন মিঠাইয়ের কথা বলছি। এই বছর প্রথম দিকে শুরু হয় এই ধারাবাহিক। তা হল জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক। ‘মিঠাই’ শুরু থেকেই একটানা টিআরপি রেটিংয়ে একচেটিয়া ভাবে শীর্ষ স্থান দখল করে রেখেছে। এই ধারাবাহিকের প্রতিটা চরিত্র মন কেড়েছে সকল মা কাকিমাদের। মিঠাই থেকে সিড , রাজীব থেকে নন্দা, টেস থেকে সোম, নিপা হোক কিংবা রুডি, শ্রীতমা আর রাতুল। নিজেদের সাবলীল অভিনয় দিয়ে সকলের মনে পাকাপাকি জায়গা করে নিয়েছেন।

বেঙ্গল টপারের খেতাবও মিঠাইয়ের মোদক পরিবার নিজের নামে করে রেখেছে। আর মিঠাইয়ের জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন করে আর কিছুই বলার নেই। তবে মিঠাই রানী ফের ট্রোলড হলেন। গতকাল ছিল মহালয়া! দেবীপক্ষের সূচনা হয়ে গিয়েছে। । এই বছর জি বাংলার মহালয়া স্পেশ্যাল অনুষ্ঠান ‘নানা রূপে মহামায়া’তে দেবী কমলে কামিনী হিসাবে দেখা মিলেছে সৌমিতৃষার। কিছুদিন আগে মহালয়াতে সৌমিতৃষার নাচের ভিডিও ক্লিপিংস বেশ ভাইরাল হয়। সেখানে নাচের স্টেপ ভুলে যাওয়ার জন্য চরম ট্রোলড হয়েছিলেন মিঠাই রানি। যদিও সৌমিতৃষা স্পষ্টভাবে জানিয়েছিলেন, সেই ভিডিও ক্লিপিংস রিহার্সালের ভিডিয়ো, মূল অনুষ্ঠানের নয়।

তবুও নিন্দুকরা খারাপ কথা বলতে ছাড়েননি। এর মাঝেই ফের নতুন করে সমালোচিত হলেন মিঠাই রানী। এবার অবশ্য অভিনেত্রীফ নিজের কোনও ভুলভ্রান্তির জন্য নয়। সৌমিতৃষার দেবী কমলে কামিনী লুকেই একটি নাচের ভিডি সম্প্রতি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ পোস্ট করেছেন। আর সেই ভিডিয়োরমত গোলাপি-কমলা লেহেঙ্গা চোলিতে নাচতে দেখা যাচ্ছে মিঠাই রানি-কে। এই নাচে কোনো আপত্তি নেই নেটনাগরিকদের।

তবে এই নাচের গানের লিরিক্স নিয়ে আপত্তি নেটপাড়ার। ওই গানের লিরিক্সকে ‘বিচ্ছিরি’ বলে সমালোচনা করলেন নেটিজেনরা। একজন লিখেছেন- ‘ছন্দ মেলানোর জন্য যা ইচ্ছে তাই’, অপর একজন কটাক্ষের সুরে লেখেন ‘এটা মহালয়া না পাড়ার কালচারাল প্রোগ্রাম ধরতে পারবেন না’।  তবে সৌমিতৃষার এই নাচে শুধু কটাক্ষ জোটেনি। মিঠাই ভক্তরা এই নাচের ভিডিয়োতে কিন প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন সৌমিতৃষাকে। মিঠাই ভক্তদের দাবি ‘দেবী রূপে অপরূপা মিঠাই রানি’,

Related Articles

Back to top button