×
বলিউডবিনোদন

ফাতিমা সানা শেখকে তৃতীয়বার বিয়ে করতে পারছেন না আমির খান, সামনে এলো আসল কারণ

Advertisement

আমির খান বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট। সবকিছু নিখুঁতভাবে গুছিয়ে করতে পছন্দ করেন তিনি। নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় প্রথম সারির অভিনেতা তিনি। একটা সময় পর পর একাধিক হিট ছবি নিজের দর্শকদের উপহার দিয়ে গেছেন অভিনেতা। বর্তমানে তার নিজস্ব প্রোডাকশন হাউজও রয়েছে। এখন বড়পর্দায় অভিনেতাকে কম দেখা গেলেও নিজের দাপট এখনো বজায় রেখেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে, তা আর আলাদাভাবে বলার প্রয়োজন নেই।

Advertisement

গত কয়েকমাস ধরেই নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে ঘিরে চর্চায় রয়েছেন অভিনেতা। উল্লেখ্য, চলতি বছরে অভিনেতার জন্মদিনের পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন তার প্রথম স্ত্রী রিনা দত্ত। তবে কিরণ রাওয়ের সাথে সম্পর্কে থাকাকালীন নিজের প্রাক্তন স্ত্রীয়ের সাথে সম্পর্ক রাখেননি তিনি। তবে এবছর প্রাক্তন প্রথম স্ত্রী তার জন্মদিনে উপস্থিত থাকায় সেই নিয়ে চর্চায় উঠে এসেছিলেন অভিনেতা। উল্লেখ্য, রিনা দত্ত ও কিরণ রাও দুজনের সাথেই ১৫ বছরের সংসার জীবনে আবদ্ধ ছিলেন। তবে মাঝে প্রশ্ন উঠেছিল তিনি কি তবে তার প্রথম স্ত্রীয়ের কাছে ফিরে যাচ্ছেন আবারো? তবে সে কথাটি যে সত্যি নয়, তা এতদিনের স্পষ্ট।

কয়েকমাস ধরেই ফাতিমা সানা শেখকে নিয়ে চর্চায় আমির খান। মাঝে শোনা যাচ্ছিল, তৃতীয় বিয়ে করলে তিনি ‘কবুল’ বলতে পারেন এই অভিনেত্রীকেই। কিন্তু তিনি কিছুতেই নিজের তৃতীয় বিয়ের দিকে এগোতে পারছেন না, আর তার কারণ যে তার মেয়ে ইরা খান, তা জানা গিয়েছে ইতিমধ্যেই। ফাতিমা সানা শেখের সাথে অভিনেতার নাম জড়িয়েছে ‘দঙ্গল’ ছবিতে অভিনয় করার পর থেকেই। তবে নিজেদের সম্পর্কের কথা তারা কখনোই স্বীকার করেননি মিডিয়ার সামনে। গুঞ্জন হিসেবেই উড়িয়ে দিয়েছেন এই সম্পর্ককে। তবে মাঝে এও শোনা গিয়েছিল, আমির খানের সুপারিশেই নাকি একাধিক ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পর্যন্ত পেয়েছেন ফাতিমা। তবে এই প্রসঙ্গে কেউই কোনো মন্তব্য করেননি।

Advertisement

তবে সম্প্রতি জানা গিয়েছে, ফাতিমা সানা শেখের সাথে নিজের তৃতীয় বিয়ে সম্পন্ন করতে না পারার একমাত্র কারণ অভিনেতার মেয়ে ইরা খান। তিনি নাকি জানিয়েছেন, যদি তার বাবা তৃতীয় বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন তাহলে, তিনি তার বাবার সাথে কোনো রকম কোনো সম্পর্ক রাখবেন না। মূলত এই কারণবশতই মেয়ের বয়সী ফতিমা সানা শেখকে বিয়ে করতে পারছেন না অভিনেতা। সম্প্রতি এই তথ্যটিই প্রকাশ্যে এসেছে মিডিয়ার হাত ধরে।

Related Articles

Back to top button