×
অফবিটদেশভাইরাল & ভিডিও

১৩৫ জন ব্যাঙ্গালোরবাসী একসঙ্গে অনলাইনে গান গাইলেন, দেখুন মন ভালো করা সেই ভিডিও

Advertisement

শ্রেয়া চ্যাটার্জি – ব্যাঙ্গালোর কোরাস গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা মায়া মাসকারেনহাস বলেন বিশ্ব যখন যুদ্ধ করছে করোনাভাইরাস এর মতন একটা মারণ ব্যাধির বিরুদ্ধে, তখন আমাদের প্রত্যেকেরই দরকার এমন একটা কিছু যাতে আমাদের জীবনটা একটু সাবলীল হয়ে ওঠে। আমরা একটু নিশ্চিন্তে অন্তত কিছুটা সময় থাকতে পারি। তাদের এই প্রচেষ্টা শুধুমাত্র ভারতে নয় গোটা পৃথিবীতে যেন একটা আশার আলো তৈরি করতে পারে।

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা একটি ভিডিও বার করেছে যে ভিডিওতে দেখা গেছে ১৩৫ জন একসঙ্গে মিলে গান গাইছেন ‘হাম হোঙ্গে কামিয়াব’। পাতি বাংলা ভাষায় বললে বলতে হয় আমরা করব জয়। এই ভিডিওটি ভারতবর্ষ ছাড়িয়ে পৌঁছে গেছে গোটা বিশ্বে। বছরের এই একটা সময় এমন একটা সময় যাচ্ছে যে আমরা প্রত্যেকে মিলে একসঙ্গে গান গাইছি। আমরা প্রত্যেকে একসঙ্গে ঘরের মধ্যে বন্দি। প্রত্যেকটি ঘরে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা, পরীক্ষা সব বন্ধ। এরকম পরিস্থিতিতে তাদের মধ্যে এই ভাবনাটির কথা মাথায় আসে। তারা ঘোষণা করেন যে, এই কোরাসের প্রত্যেক জন সদস্য যেন আলাদা আলাদা করে ভিডিও করে তাদেরকে পাঠায়। যেইনা বলা তেমনি কাজ শুরু। পরের দিনই আসতে শুরু করে এক একটি ভিডিও। পুরো হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ভেসে যায় ভিডিওতে। তাই তারা বেশিদিন আর অপেক্ষা করতে পারেনি। তবে তার স্বামীও তার মধ্যে একটু গিটার এর সুর যোগ করে দেন।

এখন তারা অনলাইনে গান গাইলো, এরা কিন্তু ব্যাঙ্গালোরে বেশ পরিচিত মুখ। নানা জায়গায় অনুষ্ঠান করেন। নানান রকম অনাথ আশ্রম, বৃদ্ধাশ্রম এমনকি ব্যাঙ্গালোর ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে তারা ক্রিসমাসের সময় অনুষ্ঠান করেছে।  গোটা বিশ্ব প্রায় কার্যত ঘরবন্দি। একেকটা দিন মানুষের কাটছে দুশ্চিন্তা নিয়ে, দুশ্চিন্তার তালিকায় রয়েছে তাদের শরীর, তাদের চাকরি। অবশ্যই তাদের জীবন। সবকিছুই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে এখন মানুষের কাছে। আর সঙ্গীতই পারে মানুষকে ভালো রাখতে। তাই তাদের এই প্রয়াসকে কুর্ণিশ জানাতে হয়।

Advertisement

প্রত্যেকটি দেশই ভালো থাকতে সংগীতের হাত ধরেছে। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে আমরা দেখতে পাই, এক বারান্দা থেকে আরেক বারান্দায় গানের মাধ্যমে মানুষ ভালো থাকার চেষ্টা করছে। কেউ বাজাচ্ছে বেহালা, কেউ বাজাচ্ছে পিয়ানো, কেউ বা গলা ছেড়ে গান ধরেছে। তাই বিদেশ নয়, আমাদের দেশেও মানুষ ভালো থাকতে এমন কাজ শুরু করে দিয়েছে। প্রত্যেকেই চাইছে নিজের মতো করে ভালো রাখতে। আর তাদেরই ভালো রাখার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে, অন্য মানুষকে ভাল থাকার সুযোগ করে দিচ্ছে।

Related Articles

Back to top button